না বাহারি সাজ, না VFX! বাঙালির সেরা দূরদর্শনের প্রথম ‘মহিষাসুরমর্দিনী’ এখন কী করছেন জানুন

পুজো প্রায় চলেই এল। বাঙালি এখন তৈরি হচ্ছে বাড়ির মেয়ে উমাকে ঘরে তোলার জন্য। পুজোর শুরু হয় মাতৃপক্ষের শুরু দিয়ে। আর পিতৃপক্ষের অবসান ঘটিয়ে মাতৃপক্ষের শুরু হয় মহালয়ার দিন থেকে। দিনটি আপামর বাঙ্গালির কাছে স্মৃতি বিজড়িত। দেবী পক্ষের শুরুই হয় বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের কণ্ঠে চণ্ডীপাঠ শুনে। সাথে সেইদিন ভোরবেলা টেলিভিশনের পর্দায় সম্প্রচারিত হয় ‘মহিষাসুরমর্দিনী’।

বর্তমানে একাধিক চ্যানেল তৈরী হওয়ায় সেখানে বিভিন্ন চ্যানেলে বিভিন্ন অভিনেতা অভিনেত্রীদের নিয়ে তৈরি হয় মহালয়ার অনুষ্ঠান। অবশ্য বহু আগে থেকেই শুরু হয়ে যায় কে কোন চ্যানেলে মা দুর্গা রূপে আত্মপ্রকাশ করবেন। TRP নিয়ে ওইদিন ব্যাপক রেষারেষি চলতে থাকে। কিন্তু জানেন কি যখন এত চ্যানেল থাকেনি তখনো মহিষাসুরমর্দিনী হতো ভোরবেলা।

সময়টা বেশ কিছুটা আগের তখন এত চ্যানেলের ছড়াছড়ি ছিলনা। ঠিক সেই সময় দর্শকরা মহালয়ার দিন ভোরবেলা দূরদর্শন খুলে বসতেন। সেখানে মা দূর্গার ভূমিকায় দেখা যেত সংযুক্তা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তিনিই ছিলেন বাংলার প্রথম মহিষাসুরমর্দিনী দুর্গতিনাশিনী। নস্টালজিক বাঙালি আজও সেই অনুষ্ঠান দেখতে বেশ পছন্দ করে।

সেই সময়ে ছিলনা কোনো VFX বা সাজগোজের বাহার। তবে এখনকার নায়িকাদের মত এত ম্রিয়মাণ থাকেননি সংযুক্তা, তিনি ছিলেন ত্বেজশীলা। ন্যূনতম সাজপোশাকেই মা দুর্গার রূপে তাঁকে দারুণ পছন্দ করত বাঙালিরা। আর সেই ত্বেজের ছাপ, সেই চোখের দ্যুতি, আর সহজাত অভিব্যক্তি এখনো রয়ে গিয়েছে বাঙালির চিন্তনে এবং মননে।

জানলে অবাক হয়ে যাবেন তিনি তখন ছিলেন প্রথম বর্ষের ছাত্রী। শ্রী শিক্ষায়তন কলেজে প্রথম বর্ষে পড়ার সময়ই মহালয়ার অনুষ্ঠানে দেবী দূর্গার জন্য মনোনীত হয়ে যান সংযুক্তা। এরপর দুই মাস ধরে চলা ওয়ার্কশপের মাধ্যমে তাকে গড়েপিঠে নেন নির্মাতারা। সেখানেই তিনি প্রথম শেখেন ত্রিশূল, চক্র ধরা এবং ফাইট সিকোয়েন্স। শর্মিষ্ঠা দাশগুপ্তের তত্ত্বাবধানে এবং নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ির চিত্রনাট্য নিয়ে সনৎ মোহান্তের নির্দেশনায় তৈরি হয় সেই কালজয়ী মহালয়ার অনুষ্ঠান। আজও মহালয়ার দিন ভোরবেলা টিভি খুলে অনেকেই সেই দূরদর্শনের মহিষাসুরমর্দিনী দেখতে বেশি পছন্দ করেন।

এখন কোথায় রয়েছেন তিনি ?

সেই সংযুক্তা বন্দ্যোপাধ্যায় এখন আর ভারতীয় নন, তিনি বর্তমানে কানাডার বাসিন্দা। সেখানে নাচের স্কুল চালান তিনি। শুধু কানাডা নয়, আমেরিকা এবং আশপাশের আরো কয়েক জায়গায় পুজোর সময়ে নাচের অনুষ্ঠান করেন সংযুক্তা ও তাঁর নাচের স্কুলের শিক্ষার্থীরা।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button