দীর্ঘ ১০ মাস ধরে চলছিল প্রক্রিয়া, হঠাৎই বদল! রেশন পরিষেবা নিয়ে বড় ঘোষণা খাদ্য দফতরের

কলকাতাঃ রেশন দুর্নীতি থেকে বাঁচতে বড়সড় পদক্ষেপ পশ্চিমবঙ্গ সরকারের। পশ্চিমবঙ্গ খাদ্য দফতর থেকে প্রতিটি গ্রাহককে জানিয়ে দেওয়া হবে পরিবারের মাসিক রেশনের পরিমাণ কত হবে। তবে এর জন্য মোবাইল নাম্বারটি নথিভুক্ত করতে হবে সংশ্লিষ্ট রেশন কার্ডের সাথে। এরপর তাদের নথিভুক্ত মোবাইল নম্বরটিতে মাসের শুরুতেই চলে আসবে এসএমএস। এসএমএস এর মধ্যেই জানানো থাকবে কি পরিমাণ রেশন পেতে পারেন সেই গ্রাহক । খাদ্য দফতর সূত্রে খবর রাজ্যের মোট ১ কোটি ৭০ লক্ষ উপভোক্তা এখনই এই পরিষেবার সুবিধা উপভোগ করছেন।

২০২০ সাল থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু করেছে রাজ্যের খাদ্য দফতর। তবে এখনও প্রায় ৮ কোটি উপভোক্তার ফোন নম্বর রেজিস্ট্রার করা বাকি। করোনা পরিস্থিতিতে শুরু হয়েছে দুয়ারে রেশন এ অবস্থায় ডিলারের কাছে গিয়ে যাতে কোনওভাবে না ঠকে যেতে হয়, তার কারণেই এই বিশেষ পরিষেবা চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে খাদ্য দফতর। এই নিয়মের ফলে যে শুধু উপভোক্তার কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছাবে তাই নয়, এরই সাথে কিছুটা খাদ্য বাঁচাতেও তৎপর খাদ্য দফতর। জালিয়াতির সম্ভাবনা খুবই কম এই নিয়মে।

খাদ্য দফতর থেকে খবর পাওয়া যাচ্ছে যে, তাদের নজরে রয়েছে ৫০ লক্ষ রেশন কার্ড। যেগুলো নকল, অস্তিত্বহীন গ্রাহক, অযোগ্য ও মৃত ব্যক্তির। রেশন কার্ডগুলি ব্লক করছে খাদ্য দফতর। এত পরিমাণ জাল কার্ড বাদ দেওয়ার প্রচুর পরিমাণে অর্থ সাশ্রয় করতে পারছে রাজ্য সরকার।

আগের বছরই প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মৃত ব্যক্তি, জাল গ্রাহকদের রেশন কার্ডগুলিকে চিহ্নিত করে সেগুলোকে তালিকা থেকে ছাঁটাই করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। তারপরই এই সমস্ত রেশন কার্ড গুলিকে নিষ্ক্রিয় করার কাজ করে চলেছে এই খাদ্য দফতর।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button