গাড়ির মিটারের শেষ KM’র সংখ্যা মিলিয়ে লটারি কেটে বাজিমাত! কোটি টাকা জিতলেন ট্রাক চালক

বড়লোক হতে কে না চায়! প্রাসাদোপম বাড়ি, বিলাসবহুল গাড়ি, হাজার রকমের গ্যাজেট- এই তো জীবন! কিন্তু সব স্বপ্ন কি এতো সহজে পূরণ হয়? এর জন্য করতে হয় কঠোর পরিশ্রম এবং সঠিক প্ল্যান। তবে কিছু কিছু মানুষের ক্ষেত্রে তাদের ভাগ্যও সহায় হয়ে দাঁড়ায়। সম্প্রতি এমনই কিছু ঘটেছে ট্রাক চালক ডগলাসের সাথে।

আমেরিকার মেরিল্যান্ডের বাসিন্দা ডগলাস পেশার কারণে একটি পুরোনো ট্রাক কিনেছিলেন। প্রসঙ্গত সেই গাড়ির ওডোমিটারটি খারাপ হয়ে যায়। ৮২,৪৬৬ মাইল চলার পরেই জবাব দেয় ট্রাকটির ওডোমিটারটি‌। এবং এই ওডোমিটারটি খারাপ থাকা অবস্থাতেই ট্রাকটি ডগলাসের হাতে আসে।

এহেন ডগলাসের অভ্যাস ছিলো লটারির টিকিট কাটার। মাঝেমধ্যে একগুচ্ছ করে টিকিটও কাটতেন তিনি। এরমধ্যে বেশ কয়েকবার সামান্য কিছু টাকাও পান। তবে তার পরিমাণ এতোই অল্প যে তা দিয়ে স্বপ্ন পূরণ হয়না। এমতাবস্থায় একদিন তিনি ঠিক করেন যে, ওডোমিটার যে সংখ্যাটিতে শেষ হয়েছে, সেই সংখ্যার টিকিট কাটবেন।

যেই ভাবা সেই কাজ, ১৯৯৫ সালে প্রথম বার ৮২৪৬৬ সংখ্যার টিকিট নিয়ে বাড়ি ফেরেন ডগলাস। অবাক করা বিষয় হলো এই যে, সেইবারই ৫০ হাজার ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৪২ লক্ষ টাকা) জিতে নেন তিনি। তারপর থেকেই এই সংখ্যাটিকেই নিজের লাকি সংখ্যা হিসেবে মেনে চলেন ডগলাস।

lottery ticket 1ede

তবে বিষয়টি এখানেই শেষ নয়। আশ্চর্যজনক ভাবে মোট তিনবার ঐ নাম্বার দিয়ে লটারির টিকিট কেটেছিলেন তিনি। আর তিনবারেই তার ঘরে আসে কোটি কোটি টাকা। সাল ২০০৮ এ ওই একই নম্বরের টিকিট কেটে দ্বিতীয় বার ভাগ্য পরীক্ষা করেন। আশ্চর্যজনক ভাবে এবারও ১ লক্ষ ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় ৮৩ লক্ষ টাকা) জিতে নেন তিনি। এরপর সম্প্রতি আবারও ওই একই নম্বর দিয়ে লটারি কেটে তিনি পেয়ে গেছেন ২৫ হাজার ডলার (ভারতীয় মুদ্রায় ২০ লক্ষ টাকা)।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button