ব্যাপক বিপদের মধ্যে কলকাতা, বসে যাচ্ছে মাটি, ডুবে যাবে মহানগরী! তুমুল আশঙ্কা বিজ্ঞানীদের

বিশ্বে গরম বাড়ার সাথে সাথেই সমস্যা বাড়তে চলেছে। বিশেষ করে উপকূলবর্তী শহরগুলোতে। সেখানে জলস্তর বাড়তে থাকায় সামনেই খারাপ সময়ের ব্যাপারে জানান বিশেষজ্ঞরা। আসলে শুধু যে জলস্তর বাড়ছে তাই না, সাথে সাথে মাটিও বসে যাচ্ছে। সবচেয়ে বেশি সমস্যা আসতে চলেছে বিভিন্ন বদ্বীপগুলিতে।

স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণায় চাঞ্চল্যকর রিসার্চ উঠে এসেছে। বিজ্ঞানীরা জানান, বসে যাওয়ার পিছনে কারণ কী? বিজ্ঞানীদের কথায়, পৃথিবী জুড়ে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর কাজকর্মের প্রবণতা বেড়ে যাওয়ার কারণেই বসে যাচ্ছে মাটি। বিশেষ করে হাইড্রোকার্বন উত্তোলনের কারণে নষ্ট হচ্ছে মাটির প্রকৃতি।

জীব বৈচিত্র্য নষ্ট হওয়ার সাথে সাথে মাটিও অনেকটা দুর্বল হয়ে যাচ্ছে। আর তাতেই বেড়েছে বিপদ। যদিও ঘন জঙ্গল এই বিপদ থেকে কিছুটা রেহাই দিতে পারতো, কিন্তু মাটির খোঁড়াখুঁড়ি এবং সেইসাথে বড় বড় ইমারত নির্মাণের কারণে সমস্যা বেড়েছে। আর মাটি নিচে নেমে গেলে সমুদ্রের জলতল আরো একটু উঁচু হয়ে যাবে।

kolkata city profile

তাৎক্ষণিক এই সমস্যার সমাধান নাহলে পৃথিবীর বহু বদ্বীপ অচিরেই হারিয়ে যাবে। ঘটনা সম্পর্কে বিজ্ঞানী রাফায়েল স্মিথ জানান, মানুষের কর্মকাণ্ডের জন্যই এমনটা হবে। এদিকে বিশ্বের GDP এর ৪% আসে এই বদ্বীপ গুলো থেকেই। এতে যে বেশ বড় বিপর্যয় আসবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।

জানিয়ে রাখি যে, বিশ্বের সবচেয়ে বড় বদ্বীপ গাঙ্গেয় বদ্বীপ। ব্রহ্মপুত্র ও গঙ্গার দুই শাখা নদী মিলে তৈরি করেছে এই ২৫০ কিমি চওড়া বদ্বীপ। সেটি ডুবে গেলে সমস্যা বেশ বাড়বে। সাথে কলকাতা এবং গাঙ্গেয় দক্ষিণবঙ্গের অবস্থাও অনেকটা একইরকম হতে চলেছে।

বিজ্ঞানী রাফায়েল স্মিথের কথায়, মানুষের কিছু বিবেচনাহীন কাজের জন্য এমন বিপদের সামনে এসে দাঁড়িয়েছে পৃথিবী। সমুদ্রের মাঝে বদ্বীপের সংখ্যা কম হলেও নদীর মাঝে বদ্বীপগুলি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্বের জিডিপির ৪ শতাংশ এই বদ্বীপগুলি থেকে আসে। ঘটনাচক্রে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বদ্বীপ গাঙ্গেয় বদ্বীপ। ব্রহ্মপুত্র ও গঙ্গার দুই শাখা নদী মিলে তৈরি করেছে এই ২৫০ কিমি চওড়া বদ্বীপ। স্বাভাবিকভাবে কলকাতা ও দক্ষিণবঙ্গও একই বিপদের মুখে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button