সীমান্তে চীনকে বেকায়দায় ফেলতে বড় পদক্ষেপ ভারতের, জ্বলবে বেজিং

নয়া দিল্লিঃ প্রতিরক্ষা মন্ত্রক হালকা ট্যাঙ্কগুলির স্বদেশী ডিজাইন আর উন্নয়নের জন্য নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (LAC) বরাবর সামরিক অচলাবস্থার সময় পূর্ব লাদাখে চীন তার Type-15 লাইট ট্যাঙ্ক মোতায়েন করার পর ভারতীয় সেনাবাহিনীও হালকা যুদ্ধ ট্যাঙ্ক নিয়ে ভাবনা শুরু করে। এটি ভারতকে উচ্চ উচ্চতা অঞ্চলে C-17 এবং IL-76 পরিবহন বিমান ব্যবহার করে অতিরিক্ত প্রধান যুদ্ধ ট্যাঙ্কগুলিকে এয়ারলিফ্ট করতে সহায়তা করবে।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর আগাগোড়াই হালকা ট্যাঙ্কের প্রয়োজন ছিল। পূর্ব লাদাখে LAC-তে ভারত-চীন বিবাদের কারণে সেই প্রয়োজন আরও বেড়ে যায়। তবে সে সময় ভারত T-72 এবং T-90 এর মতো ভারী ট্যাংক মোতায়েন করলেও সেগুলো কৌশলগতভাবে উপযুক্ত ছিল না। প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের এই পদক্ষেপটি সরকার সেই ঘোষণা পর নেওয়া হয়েছে, যেখানে দেশীয় অস্ত্র ব্যবস্থার উৎপাদন বাড়ানোর জন্য একাধিক পদক্ষেপের অংশ হিসাবে বার্ষিক প্রতিরক্ষা গবেষণা এবং উন্নয়ন বাজেটের 25 শতাংশ বেসরকারি শিল্প এবং স্টার্টআপগুলিতে বরাদ্দ করা হয়েছে।

ভারতের এই পদক্ষেপে চীনের শঙ্কা বাড়তে পারে। কারণ, চীনও ইতিমধ্যে সীমান্তে নিজেদের শক্তি বাড়ানোর জন্য বড়বড় পদক্ষেপ নিচ্ছে। অন্যদিকে, ভারতও চীনের শক্তি খর্ব করার জন্য একের পর এক পরিকল্পনা ফলপ্রসূ করছে। এবছরই ভারত রাশিয়ার থেকে অত্যাধুনিক এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম নিয়ে এসে চীন-পাকিস্তান সীমান্তে মোতায়েন করা হয়েছে।

পাশাপাশি ভারত আমেরিকা ও ইজরায়েল থেকে অত্যাধুনিক ড্রোন চীন সীমান্তে মোতায়েন করেছে। তাছাড়া সীমান্তে ভারতীয় প্রহরীদের সংখ্যাও বিপুল ভাবে বৃদ্ধি করা হয়েছে। ভারতের এই পদক্ষেপগুলোতে এটুকু স্পষ্ট যে, চীন কোনও ভুল করলে ভারত তা ক্ষমা করতে প্রস্তুত না।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button