বেকার ভেবে ভুলেও ফেলে দেবেন না পেঁয়াজের খোসা, বেঁচে যাবে সংসারের অনেক টাকা

বৈচিত্র্যময় দেশ আমাদের ভারতবর্ষ, আর বৈচিত্র্যময় দেশে খাওয়া দাওয়ার বহরও সেই রকমই বৈচিত্র্যময়। ভিন্ন ভিন্ন জায়গার ভিন্ন ঘরানার খাবার দাবার। তবে এরমধ্যে এমন একটি উপাদান যা প্রায় প্রতিটি বাড়িতেই পাওয়া যায় তা হলো পেঁয়াজ (Onion)। সাধারণ পেঁয়াজের খোসা ফেলে দিয়ে ভেতরের অংশ দিয়েই রান্না করা হয়। তবে জানেন কি ফেলে দেওয়া এই খোসাও বহু কাজে লাগে। আজ এই প্রতিবেদনে পেঁয়াজ খোসার উপকারিতা সম্পর্কে বলবো।

ত্বকের যত্ন:- চা প্রেমীদের জন্য একটা ভালো খবর হলো, চায়ের সাথে পেঁয়াজের খোসা মিশিয়ে খেতে পারেন। তাতে করে পেঁয়াজের খোসার মধ্যে থাকা ভিটামিন ‘এ’ সহ আরও বেশ কিছু পুষ্টিকর উপাদান শরীরে মধ্যে যাবে যা দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করবে। এছাড়া যদি কারো শুষ্ক ত্বকের সমস্যা থাকে তাহলে দূর হবে সেই সমস্যাও।

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি:- আমরা প্রত্যেকেই কমবেশি ঋতু পরিবর্তনজনিত সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকি। পেঁয়াজের খোসায় থাকে ভিটামিন সি। আর ভিটামিন সি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধকারী ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এমতাবস্থায় পেঁয়াজের খোসা মিশ্রিত চা আমাদের গলা ব্যাথা থেকে শুরু করে ইমিউনিটি বাড়ানো সবকিছুর জন্যই দারুণ কাজ করে।

চুল বৃদ্ধি:- আজকালকার ব্যস্ত জীবন আর স্ট্রেসের কারণে চুল পড়া জনিত সমস্যার সম্মুখীন তো কমবেশি সকলেই। জানিয়ে রাখি জলের মধ্যে পেঁয়াজ খোসা দিয়ে ফুটিয়ে সেই জল দিয়ে চুল পরিষ্কার করলে চুল যেমন তাড়াতাড়ি লম্বা হয় তেমনই দ্রুত রেহাই মিলবে খুশকির সমস্যা থেকেও।

পেশীর সমস্যা দূর হবে:- পেশীতে খিঁচুনি, পায়ে ব্যাথা জনিত সমস্যা থেকে রেহাই পেতে পেঁয়াজ খোসার জুড়ি মেলা ভার। ১ গ্লাস জলে পেঁয়াজ খোসা ভিজিয়ে রেখে দিয়ে ১৫ মিনিট ধরে ফুটিয়ে নিন। এই জল দিয়ে চা তৈরি করে খান, প্রয়োজনে চিনির বদলে মধু দিতে পারেন চায়ে। নিয়মিত সেবন করুন এই চা, খুব শীঘ্রই রেহাই মিলবে পায়ে ব্যাথা থেকে।

onion

চুলকানি থেকে মুক্তি:- পেঁয়াজের খোসার মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি-ফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্য। ভালো করে ধুয়ে বেশ অনেকক্ষণ ধরে ফুটিয়ে নিন পেঁয়াজের খোসাগুলি। এরপর ঠান্ডা করে কাঁচের বোতলে স্টোর করে রেখে দিন। নিয়ম করে এই জল প্রতিদিন আক্রান্ত স্থানে লাগান। খুব তাড়াতাড়িই মুক্তি মিলবে চুলকানি জনিত সমস্যা থেকে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button