তিরুপতি মন্দিরে ১.০২ কোটি টাকা দান মুসলিম দম্পতির, এর আগে দিয়েছিলেন ৩৫ লাখের ফ্রিজ

ভারতে (India) ধর্মীয় বিভেদ কোনো নতুন ঘটনা নয়। ব্রিটিশদের ‘divide and rule’- পলিসি এর কারণে বিভিন্ন ভাষাভাষী এবং ধর্মীয় গোষ্ঠীর মধ্যে শুরু হয় বিভেদ এবং হিংসা। ব্রিটিশরা চলে গিয়েছে, দেশ স্বাধীন হয়েছে কিন্তু আজও দেশের মানুষের মধ্যেকার অনৈক্য দেশের অগ্রগতির পথে বাধার সৃষ্টি করেছে। কিন্তু তারই মধ্যে এক অভূতপূর্ব ঘটনা ঘটেছে অন্ধ্রপ্রদেশের বিখ্যাত তিরুপতি বালাজি মন্দিরে (Sri Venkateswara Swamy Vaari Temple)।

তামিলনাড়ুর চেন্নাই থেকে আগত এক মুসলিম দম্পতি অন্ধ্রপ্রদেশের তিরুমালায় অবস্থিত ভগবান ভেঙ্কটেশ্বরের বিখ্যাত মন্দির তিরুপতি বালাজিতে দান করলেন ১.০২ কোটি টাকা! আব্দুল গনি এবং তার স্ত্রী সুবিনা বানো অন্ধ্রপ্রদেশের তিরুমালায় গিয়ে তিরুপতি দেবস্থানমের নামে এই অর্থ প্রদান করেছেন।

জানা যাচ্ছে ওই মোটা অংকের অনুদান ব্যাবহৃত হবে বিভিন্ন প্রয়োজনে। যেমন ৮৭ লক্ষ টাকা খরচ করে মন্দিরের রেস্ট হাউসের অবস্থা ভালো করা হবে। আর বাকি ১৫ লক্ষ টাকা ডিমান্ড ড্রাফট আকারে এসভি আন্না প্রসাদম ট্রাস্টের কাছে হস্তান্তর করা হবে। প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি এসভি আন্না প্রসাদম ট্রাস্ট প্রত্যহ কয়েক হাজার ভক্তদের বিনামুল্যে খাবার সরবরাহ করে।

ওই মুসলিম পরিবার তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানম এর অফিসার এভি ধর্ম রেড্ডির সাথে দেখা করেন এবং তার হাতে একটি ১ কোটি টাকার চেক অনুদান স্বরূপ তুলে দেন। আর তার বিনিময়ে ওই মুসলিম দম্পতিকে মন্দিরের প্রসাদ দেয় মন্দির প্রশাসন। এই ঘটনা ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে গিয়েছে অনেক জায়গাতে।

তবে এই প্রথম নয় যে আবদুল গনি মন্দিরে গিয়ে দান করলেন। এর আগে তিরুপতি বালাজি মন্দিরে সবজি পচন বাঁচাতে ৩৫ লাখ টাকার ফ্লিজ দান করেছিলেন তিনি। শুধু তাই না, ওই মুসলিম ব্যবসায়ী তারও আগে থেকেই প্রমাণ করেছেন যে তিনি তিরুপতি বালাজির কত বড় ভক্ত। ২০২০ সালে করোনা পরিস্থিতিতে মন্দির চত্বরে জীবাণুনাশক স্প্রে করার জন্য একটি ট্রাক্টর বসানো স্প্রেয়ার দান করেছিলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, মাত্র কয়েকদিন আগেই রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানিও তিরুমালা মন্দিরে ১.৫ কোটি টাকা দান করেছেন। দক্ষিণ ভারতের বিখ্যাত তিরুপতি বালাজি মন্দিরটি অন্ধ্র প্রদেশের চিত্তুর জেলায় অবস্থিত। এখানে প্রায়ই কোটি কোটি টাকা অনুদানের আকারে আসে। এই মন্দির সম্পর্কে বিশ্বাস করা হয় যে, এখানে এলে মন থেকে সমস্ত পাপ দূর হয়ে যায় এবং অশুভ শক্তির করালগ্রাস থেকে সরে এসে মানুষের সমস্ত দুঃখ কষ্টের অবসান হয়।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button