মানবে না ছাতাও! বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঝেঁপে বৃষ্টি, শিল পড়ার সম্ভাবনা! আজ থেকে দক্ষিণবঙ্গে চরম দুর্যোগ

যেন অক্ষরে অক্ষরে মিলে গেল আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস। আজ সোমবার অর্থাৎ সপ্তাহের প্রথম দিন থেকেই বিরাট ভোলবদল ঘটল আবহাওয়ার (Weather)। গতকাল যেখানেই ১৫ ডিগ্রির ঘরে বাংলার তাপমাত্রা ছিল, আজ সেই তাপমাত্রা এক ধাক্কায় বেশ খানিকটা বেড়েছে।

আলিপুর আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আজ সারাদিন বাংলার আকাশ কালো মেঘে ঢেকে থাকবে। সেইসঙ্গে কোথাও কোথাও ছিটেফোঁটা বৃষ্টিও হতে পারে। একেবারে আশংকা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। আজ বাংলার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৭ ডিগ্রি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকবে বলে খবর।

   

এদিকে আজ থেকেই জেলায় জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ভ্যালেন্টাইন ও সরস্বতী পুজোর সময়তেও ঝড়বৃষ্টির প্রবল সম্ভাবনা। আজ অর্থাৎ ১২ থেকে ১৫ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সময়সীমার মধ্যে দক্ষিণবঙ্গের (South Bengal) পশ্চিমাঞ্চল ও তৎসংলগ্ন জেলাগুলোতে বিক্ষিপ্ত ভাবে বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঝড়বৃষ্টি ও শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও আগামী বৃহস্পতিবার বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে দক্ষিণবঙ্গে। এই অকাল বর্ষণের হাত থেকে রেহাই পাবে না শহর কলকাতাও।

হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, কলকাতা সহ প্রায় সব জেলাতেই হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। জানা গিয়েছে,আজ কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭.১। স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি নীচে। আজ হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে পশ্চিমের জেলাগুলিতে। যেমন বৃষ্টি পারে পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম এবং পশ্চিম বর্ধমানে।

rain weather

এছাড়া আগামীকাল বুধবার সরস্বতী পুজোর দিন হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম, নদীয়া, মুর্শিদাবাদ, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম বর্ধমানে। যদিও আপনি জানলে অবাক হবেন, এখনো শৈত্য প্রবাহের পরিস্থিতি পুরুলিয়া সহ সংলগ্ন পশ্চিমের জেলাগুলিতে। পাশাপাশি, উত্তরবঙ্গের দিনাজপুরে ও শৈত্য প্রবাহের পরিস্থিতি। হাওয়া অফিসের খবর, শুধুমাত্র উত্তর-পশ্চিম উত্তর প্রদেশে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে।

সম্পর্কিত খবর