কলকাতায় ‘বিশ্ব বাণিজ্য কেন্দ্র’! ২১৯ কোটিতে ৩৮ তলার ভার্টিক্যাল সিটি গড়বে পশ্চিমবঙ্গ সরকার

ফের এক নজির গড়তে চলেছে শহর কলকাতা (Kolkata)। গোটা দেশ তো বটেই, বিশ্বের বহু তাবড় তাবড় দেশও এবার চোখ মেলে তাকাবে কলকাতার উদ্দেশ্যে। কারণ পশ্চিমবঙ্গ সরকারের (Government Of West Bengal) উদ্যোগে কলকাতা শহরের মুকুটে এক নয়া পালক জুড়তে চলেছে। কেউ হয়তো ভাবতেও পারবেন না আগামী দিনে এমন এক জিনিস হতে চলেছে শহরে।

৩৮ তলার ‘ভার্টিকাল সিটি’

আপনি জানলে হয়তো চমকে উঠবেন, ২১৯ কোটি টাকা খরচ করে ৩৮ তলার ‘ভার্টিকাল সিটি’ (Vertical City) তৈরি হতে চলেছে কলকাতায়। আর এই উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। কী শুনে চমকে গেলেন তো? কিন্তু এটাই দিনের আলোর মতো একদম সত্যি। আর এই বিল্ডিংটি আমেরিকার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের (World Trade Center) আদলে তৈরি হচ্ছে বলে খবর। নগরোন্নয়ন ও পৌর বিষয়ক মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim) মঙ্গলবার জানিয়েছেন, ইকো পার্কের (Eco Park) বিপরীতে নিউ টাউনের (New Town) সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক্টে (সিবিডি) ৩৮ তলা বিশিষ্ট একটি ব্যবসা ও বাণিজ্য কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে।

   

মঙ্গলবার হিডকো বোর্ডের বৈঠকের পরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘এই প্রকল্পে প্রায় ২০০ কোটি টাকা ব্যয় করা হবে। আমরা এই বিল্ডিংয়ের জন্য প্রায় চার বছরেরও বেশি সময় নির্ধারণ করছি, যেখানে সমস্ত অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকবে এবং এটি কেবল বাংলায় নয়, পূর্ব ভারতের অন্যান্য অংশেও ব্যবসায়ের প্রসারে সহায়তা করবে।‘

পরিকল্পনা জানান ফিরহাদ হাকিম

তিনি আরও বলেন, “আমরা এমন একটি বিল্ডিংয়ের পরিকল্পনা করছি যা অন্যান্য সুবিধার পাশাপাশি উচ্চ পর্যায়ের সভা, সম্মেলন এবং কর্মশালার সুবিধার ক্ষেত্রে ব্যবসা সম্পর্কিত সব সমস্যায় এক ঝটকায় সমাধান করবে।“  হিডকোর এক আধিকারিক জানিয়েছেন, মুম্বই ও কোচির ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের আদলে নিউ টাউনে ট্রেড সেন্টারের জন্য চার একর জমি বরাদ্দ করা হয়েছে।

ওই কর্মকর্তা বলেন, ভবনের অফিসগুলো ইজারা বা মালিকানায় পাওয়া যাবে এবং টার্গেটেড মার্কেট হবে ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, কর্পোরেট হাউজ ও ট্রেড প্রমোশন অর্গানাইজেশন। হিডকোর এক সিনিয়র আধিকারিক জানিয়েছেন, নিচতলার কয়েকটিতে শপিং জোন থাকবে।

২০২৮ সালের মধ্যে তৈরি হয়ে যাবে বাণিজ্য কেন্দ্র

এই কেন্দ্রটি শপিং গন্তব্য ছাড়াও কনফারেন্স হল, প্রদর্শনী কেন্দ্র এবং অফিস স্পেসের ক্ষেত্রে নিউ টাউনের সক্ষমতা বাড়িয়ে তুলবে। ডিজাইনটি নিজেই বিশ্বজুড়ে বহুতল বাণিজ্য কেন্দ্রগুলি থেকে সংকেত আকর্ষণ করবে।“ফিনটেক কোম্পানি, স্টার্ট-আপের জন্য ওই বাণিজ্য কেন্দ্রে কয়েকটি তলা সংরক্ষিত থাকবে। আর উপরের দিকে কয়েকটি তলায় দোকান এবং আবাসান থাকবে বলে জানিয়েছেন সরকারী আধিকারিকরা। সূত্রের খবর, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২০২৮ সালের মধ্যে সেই বাণিজ্য কেন্দ্র তৈরি হয়ে যাবে। যা নিউটাউন-সহ কলকাতার চেহারাই পুরোপুরি পাল্টে দেবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সম্পর্কিত খবর