ট্রেনে মোবাইল, ল্যাপটপ চার্জ দিলে আর রক্ষে নেই! কড়া আইন আনল রেল, না মানলেই জেল

প্রতিদিন কোটি কোটি মানুষ ভারতীয় রেলে (Indian Railways) ভ্রমণ করেন। দেশে এমন হয়তো খুব কম মানুষই আছেন যিনি জীবনে কোনওদিনই ট্রেনে ওঠেননি। আপনিও নিশ্চয়ই ভারতীয় রেলে ভ্রমণ করেছেন। এদিকে ভারতীয় রেল নিয়ে মানুষের মধ্যে কৌতূহলের শেষ নেই। রেলের নিয়ম কী কী নিয়ম আছে? কিভাবে টিকিট কাটতে হয়, এই সকল সহ আরো অনেক কিছু নিয়ে মানুষ প্রতিনিয়ত মাথা ঘামিয়েই চলেছে।

বর্তমান সময় মানুষের মধ্যে রেলের ভ্রমণ করার উদ্যোগ যেন আরো বেড়েই চলেছে। এদিকে এমন পরিস্থিতিতে যাত্রীদের সুযোগ-সুবিধার দিকেও পূর্ণ নজর দেয় রেল। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আরো যেন আপগ্রেড হচ্ছে ভারতীয় রেল। আপনিও কি বর্তমানে এই রেলে ভ্রমণ করার পরিকল্পনা করছেন তাহলে আজকের এই প্রতিবেদনটি রইল শুধুমাত্র আপনার জন্য। রেলের একটি বিশেষ নিয়ম আছে, যেটি সম্পর্কে আপনি যদি না জেনে থাকেন তাহলে আগামী দিনে বিপদে পড়তে পারেন আপনি নিজেই।

   

বর্তমান সময়ে যাত্রীরা মোবাইল (Mobile Phone) সহ ল্যাপটপও (Laptop) সঙ্গে আনতে শুরু করেছেন। অনেকেই আছেন যারা ট্রেনে বসে ল্যাপটপে কাজ করেন। এমন পরিস্থিতিতে যাত্রীদের জন্য প্রতিটি আসনে চার্জ দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে ট্রেন, কিন্তু জানেন কি ট্রেনে সব সময় ফোন চার্জ করা যায় না? ভারতীয় রেলের নিয়ম অনুযায়ী কিছু সময়ের জন্য চার্জ দেওয়া যায় না। হ্যাঁ, আপনি যদি ট্রেনে ভ্রমণ করেন, তাহলে মনে রাখবেন যে আপনাকে বাড়ি থেকে ফোন এবং ল্যাপটপ পুরো চার্জ করতে হবে।

ভারতীয় রেলের এক নিয়ম অনুযায়ী, ট্রেনে সওয়ার যাত্রীরা রাত ১১টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত ট্রেনে স্মার্টফোন বা ল্যাপটপ চার্জ দিতে পারবেন না। রেল ট্রেনে যে কোনও ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে এটি করা হয়। প্রকৃতপক্ষে, প্রায়শই লোকেরা তাদের ফোনটি চার্জে রেখে দেয় বা ভুলে যায় এবং রাতে ল্যাপটপটি চার্জে রেখে যদি কেউ ঘুমিয়ে পড়ে তাহলে বড়সড় বিপদ হতে পারে। এটি শর্ট সার্কিটের কারণ হতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে রাতে যাত্রীকে ফোন চার্জে দিতে নিষেধ করা হয়েছে রেলের।

train

এমন নয় যে রেল নতুন কোনও নিয়ম চালু করেছে। মাঝেমধ্যেই এই বিষয়ে নির্দেশ জারি করে রেল। ২০১৪ সালে ট্রেনে অগ্নি দুর্ঘটনা রুখতে এই নির্দেশ দিয়েছিল রেল বোর্ড। এরপর ২০২১ সালে প্রতিটি জোনের জন্যও এই নির্দেশ জারি করে রেল। কিন্তু তথ্যের অভাবে অধিকাংশ যাত্রীই এই নিয়ম সম্পর্কে সচেতন নন।

অনেক সময় কম ভোল্টেজের কারণে ট্রেনে ল্যাপটপ চার্জ দেওয়া ঠিক হয় না, কারণ কম ভোল্টে ল্যাপটপ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। অন্যদিকে ট্রেনে হাই ভোল্টেজের ইলেকট্রনিক পণ্য চার্জ দিলে শর্ট সার্কিট ও আগুন লাগার সম্ভাবনা বেশি হয়ে যায়। এতে অনেক যাত্রীর জীবনে বিপর্যয় নেমে আসতে পারে বৈকি। আপনাদের জানিয়ে রাখি, গত বছর অর্থাৎ ২০২৩ সালে রাতে ট্রেনে মোবাইল ও ল্যাপটপের চার্জ নিষিদ্ধ করেছে রেল।

১৪৭টি রেলওয়ে আইন রয়েছে, যেখানে নিষিদ্ধ এলাকায় অননুমোদিত প্রবেশের মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে। একই ধারায় বলা হয়েছে, ট্রেনে কোনো কিছু ব্যবহার করলে অপরাধী এক হাজার টাকা জরিমানা, ছয় মাসের কারাদণ্ড বা উভয় দণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন।

সম্পর্কিত খবর