সাঁই সাঁই করে ছুটবে লোকাল ট্রেন, এই গুরুত্বপূর্ণ লাইনে সফল ট্রায়াল রেলের! সময় কমবে এতটা

বাংলার (West Bengal) রেল (Indian Railways) যাত্রীদের জন্য একদম সোনায় সোহাগা খবর রয়েছে। আগামী দিনে কলকাতায় (Kolkata) লোকাল ট্রেনের (Local Train) গতি বাড়াবে পূর্ব রেল (Eastern Railway zone)। এক্ষেত্রে রেলওয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছে বলে খবর। লোকাল ট্রেনের গতি বাড়ানোর জন্য প্রথম ট্রায়াল রান ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে বুধবার বলে খবর।

ঘণ্টায় ৪০ কিমি বাড়বে গতিবেগ

সব টেস্ট রান সফল হলে ট্রেনের বর্তমান গতি ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার বেড়ে যাবে। ট্রেনের গতি বাড়িয়ে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছাতে কম সময় লাগবে। এমনিতে সারা দেশে ছড়িয়ে রয়েছে ভারতীয় রেলের এক বিশাল নেটওয়ার্ক। এই কারণে, ভারতীয় রেলকে দেশের লাইফলাইনও বলা হয়। প্রতিদিন হাজার হাজার ট্রেন সারা দেশে চলে, যার মধ্যে কোটি কোটি যাত্রী যাতায়াত করেন।

শেওড়াফুলি-তারকেশ্বর লাইনে বাড়বে ট্রেনের স্পিড

   

এদিকে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ট্রেন, স্টেশন, রেলওয়ে ট্র্যাক নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করেই চলেছে রেল। যেমন এবার বাংলার বুকে বিশেষ ট্রায়াল রান হল ট্রেনের। তাও কিনা আবার লোকাল ট্রেনের। পরীক্ষামূলক ট্রায়াল রান শুরু হয় শেওড়াফুলি-তারকেশ্বর (Sheoraphuli-Tarakeswar) লাইনে লোকাল ট্রেন দিয়ে। আপনাদের জানিয়ে রাখি, বর্তমানে শেওড়াফুলি-আরামবাগ রুটের লোকাল ট্রেন ঘণ্টায় প্রায় ৮০ কিলোমিটার বেগে চলে। ট্রেনটির যাত্রা সম্পূর্ণ হতে প্রায় ১ ঘন্টা ৩০ মিনিট সময় নেয়। যদিও আগামী দিনে ট্রেনের গতি ৮০ কিলোমিটার থেকে বাড়িয়ে ১২০ কিলোমিটার করা হবে। ফলে সময়ও বাঁচবে সকলের।

পরীক্ষামূলকভাবে ট্রেনটি যাত্রী ছাড়াই এগোয়। দুপুর ২টোয় তারকেশ্বর স্টেশন থেকে ছাড়ে চার কামরার ট্রেনটি। দুপুর ২টো ২৭ মিনিটে ট্রেনটি গন্তব্যে পৌঁছায়। মাত্র ২৭ মিনিটে ৩৪ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে ট্রেনটি। রেলওয়ে সূত্রে খবর, ট্রেনটির সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১২৫ কিলোমিটার।

local trainss

যদিও এই ট্রেনের গতি বাড়ানো নিয়ে পূর্ব রেলের সিদ্ধান্তকে ঘিরে নিত্য যাত্রীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে। রেল যাত্রীদের দির্ঘদিনের অভিযোগ, এই রুটে ট্রেন খুবই দেরীতে চলে। ফলে দ্রুত গতির ট্রেন চালিয়ে কি লাভ? এক রেল যাত্রী সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জানান, ‘ট্রেনের গতিবেগ বাড়ানো হচ্ছে, ভাল কথা। এর সঙ্গে ট্রেনও যাতে সঠিক সময়ে চলে। স্টেশনে গিয়ে যাতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে না হয়। গতিবেগ পরে, আগে পরিষেবা ঠিক হোক।’’

যদিও শেওড়াফুলির স্টেশন ম্যানেজার রাম আধার প্রসাদ সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এই ট্রায়াল রান সম্পর্কে বলেন, ‘‘ট্রেনের গতি বাড়লে যাত্রীদের সুবিধা হবে। অনেক কম সময়ে গন্তব্যে পৌঁছতে পারবেন যাত্রীরা। এখন ৮০ কিলোমিটার বেগে ট্রেন চলে। ভবিষ্যতে গতিবেগ হতে পারে ১২০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায়। আজ তার ট্রায়াল রান হয়েছে। সেটি সফলও হয়েছে। ওই গতিতে ট্রেন কবে থেকে ছুটবে, তা রেলের উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা ঠিক করবেন।’’

বর্তমানে শেওড়াফুলি-আরামবাগ রুটের লোকাল ট্রেন ঘণ্টায় প্রায় ৮০ কিলোমিটার বেগে চলে। সময় লাগে ওই আনুমানিক দেড় ঘণ্টা মতো। কিন্তু যদি ১২০ কিমি বেগে ট্রেনে ছোটে তাহলে যাত্রীরা এবার মাত্র ১ ঘণ্টা বা তারও কম সময় লাগবে নিজেদের গন্তব্যে পৌঁছাতে।

সম্পর্কিত খবর