লোকোমোটিভ তৈরিতে নয়া রেকর্ড! ইতিহাস গড়ল চিত্তরঞ্জন রেল কারখানা, গর্বের কথা জানাল রেল

লোকোমোটিভ (Locomotive) তৈরির ক্ষেত্রে আগের রেকর্ড ভাঙতে চলেছে চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভ ওয়ার্কস (Chittaranjan Locomotive Works)। চলতি অর্থবছরে ৫৪০টি লোকোমোটিভ তৈরির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে চিত্তরঞ্জন রেলওয়ে কারখানা, যা আগের সব রেকর্ড ভেঙে দেবে। ভারতীয় রেলের (Indian Railways) তরফে জানানো হয়েছে, ওয়ার্কশপ থেকে ২০২৩-২৪ অর্থবর্ষের ৫০০ তম ইঞ্জিনের উদ্বোধন করেছে চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভ ওয়ার্কস। ছাপিয়ে গিয়েছে নিজেদের রেকর্ড। ২০২১-২২ অর্থবর্ষে চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভ ওয়ার্কসে ৪৮৬টি ইঞ্জিন তৈরি করা হয়েছিল।

২০১৯-২০ সালে ৪০২টি ইঞ্জিন তৈরির জন্য লিমকা বুক অফ রেকর্ডসে নাম নথিভুক্ত করে সিএলডব্লিউ। এটি রেলওয়ে লোকোমোটিভ উৎপাদনে বিশ্ব রেকর্ড ছিল। তারপর থেকেই পশ্চিমবঙ্গের (West Bengal) পশ্চিম বর্ধমান জেলায় (Paschim Bardhaman district) রেলের ইঞ্জিন তৈরির কারখানাটি একের পর এক নিজের রেকর্ড ভাঙতে থাকে।

   

রেল কারখানার জেনারেল ম্যানেজার দেবী প্রসাদ দাস বলেন, ‘গত অর্থবছরে আমরা ৪৩৬টি রেলইঞ্জিন উৎপাদন করেছি। এ বার রেল বোর্ড আমাদের ৫৪০টি ইঞ্জিনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে বলেছে। তাই চিত্তরঞ্জন কারখানায় আগের আর্থিক বছরের তুলনায় ১০০টিরও বেশি রেলইঞ্জিন তৈরি করতে হবে।’ তিনি জানান, ‘উৎপাদনের গতি ইঙ্গিত দিয়েছিল যে লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা রেল কারখানার শ্রমিকদের পক্ষে কঠিন কাজ হবে না। কারখানার শ্রমিকদের কাছে এটা বড় কোনো ব্যাপার বলে মনে হয়নি।’

chittaranjan

সূত্রের খবর, রেল কারখানার দক্ষ শ্রমিকরা গত আর্থিক বছরের মার্চ মাসে প্রতিদিন ১২টি ইঞ্জিন তৈরি করছিলেন। জেনারেল ম্যানেজার বলেন, ‘গত বছরের এপ্রিল-মে মাসে মোট ৬৭টি লোকোমোটিভ তৈরি হয়েছিল। জুন মাস থেকে কাজের গতি বাড়তে শুরু করে। শুধু জুন মাসেই ৫৫টি লোকোমোটিভ তৈরি হয়েছে। জুলাই মাসে তা ৬৫ ছাড়িয়েছে। আগস্টের শেষের দিকে, সিএলডাব্লু দ্বারা ২১০ লোকোমোটিভ ইঞ্জিন প্রস্তুত ছিল।’ জানা গিয়েছে, সিএলডাব্লু সেমি-হাই স্পিড ট্রেনের জন্য রেল ইঞ্জিন নিয়ে কাজ করছে। রেল ইঞ্জিন তৈরির সময় লোকোগুলির সুরক্ষার দিকে নজর দেওয়া হয়।

সম্পর্কিত খবর