মাধ্যমিকে এভাবে সাজাও খাতা, মিলবে এক্সট্রা নম্বর! ৯৯% পরীক্ষার্থী জানে না এই ট্রিক্স

হাতেগোনা আর মাত্র কয়েকটা দিন বাকি ব্যস তারপরেই শুরু হয়ে যাবে মাধ্যমিক পরীক্ষা (Madhyamik Pariksha)। পরীক্ষার্থীদের জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষা। আর এই পরীক্ষাকে ঘিরে সকলের মধ্যেই কম বেশি নার্ভাসনেস তো কাজ করাটাই স্বাভাবিক।

পরীক্ষা ভালো হবে কিনা? প্রশ্নপত্র কমন আসবে কিনা? ঠিক সময় মতো পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছানো যাবে কিনা এরকম নানান প্রশ্ন পরীক্ষার্থী থেকে শুরু করে তাদের অভিভাবকদের মাথায় ঘোরাফেরা করে। কিন্তু আজ এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে পড়ুয়াদের জন্য পরীক্ষার জন্য রয়েছে কিছু দুর্দান্ত টিপস। যা শুধুমাত্র মাধ্যমিক পরীক্ষাই নয়, উচ্চ মাধ্যমিক, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেও দারুণভাবে প্রযোজ্য হবে।

   

পরীক্ষাকে ঘিরে সকলের প্রস্তুতি এখন তুঙ্গে নিশ্চয়ই। কিন্তু আপনার সন্তানও কি পরীক্ষা নিয়ে খুব উদ্বিগ্ন? কোন পরীক্ষার্থী না চায় ভালো নম্বর তুলতে মাধ্যমিক পরীক্ষায়। কীভাবে তুলবে আজ এই প্রতিবেদনে সেটা নিয়েই রইল কিছু টিপস।

এবারে মাধ্যমিক পরীক্ষা সকাল ১১:৪৫ মিনিটের বদলে পরীক্ষা শুরু হবে সকাল ৯:৪৫ মিনিটে। শেষ হবে দুপুর ১টার সময়ে৷ ফলে পড়ুয়াদের উচিত অন্ততপক্ষে ৯:৩০-এর মধ্যে পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢুকে যাওয়া।  সকাল ১০ টা থেকে পরীক্ষার্থীরা লেখা শুরু করবে।

school students

এছাড়া পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র হাতে পাওয়ার পর তাড়াহুড়ো একদমই করা উচিৎ নয়। উত্তরপত্র হাতে পাওয়ার পর সবার আগে সঠিকভাবে রোল নম্বর, রেজিস্ট্রেশন নম্বর, কোন বিষয়ে পরীক্ষা ইত্যাদি লিখতে হবে। ভুল হলেই কিন্তু সমস্যা। পরীক্ষার্থীদের উচিৎ রেজিস্ট্রেশন নম্বর লেখার পর উত্তরপত্রের প্রতিটি পৃষ্ঠায় স্কেল বসিয়ে সঠিকভাবে মার্জিন কেটে নেওয়া।

এরপর প্রশ্নপত্র পাওয়ার পর ভালভাবে সেই প্রশ্নটা কত নম্বরের সেটা খাতার বাম পাশে মার্জিনের ওপারে লিখতে হবে। এমনকি পার্ট প্রশ্নের উত্তর করলেও তার দাগ নম্বর সঠিকভাবে বসাতে হবে। আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হল দুটি প্রশ্নের উত্তরের মধ্যে পরিষ্কার ব্যবধান রাখতে হবে তাতে পরীক্ষকের খাতা দেখার সময় বুঝতে সুবিধা হয়। উত্তরপত্রকে কোনোভাবেই অপরিচ্ছন্ন করলে চলবে না। অতিরিক্ত পাতা বা লুজ শিট নিলে অবশ্যই তাদের মাথায় লুজ শিট নম্বর এবং রোল ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর বসাতে হবে।

সম্পর্কিত খবর