চিঠি গেল অর্থমন্ত্রকে, বকেয়া DA নিয়ে এবার নয়া চমক! ভোটের আগেই কর্মীদের খুলবে কপাল

আর মাত্র কিছুদিন, তারপরেই একপ্রকার কপাল খুলতে চলেছে সরকারী কর্মীদের (Employee)। বিশেষ করে যারা কেন্দ্র সরকারের (Central Government) অধীনে কর্মরত। কেন্দ্রীয় সরকারের এক কোটিরও বেশি কর্মচারী এবং পেনশনভোগীরা আশাবাদী যে কোভিডের সময়ে থেকে বন্ধ থাকা ১৮ মাসের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা ‘Dearness allowance’ প্রদান করা হবে।

তবে সরকারের পক্ষ থেকে বারবার বলা হয়েছে, এ ধরনের কোনো প্রস্তাব বিবেচনাধীন নেই। করোনাকালে কেন্দ্রীয় সরকার কর্মচারীদের উল্লিখিত বেতন বন্ধ করে ৩৪,৪০২.৩২ কোটি টাকা সাশ্রয় করেছিল বলে জানা যায়। এই বিষয়ে ভারতীয় রক্ষা মজদুর সংঘের সাধারণ সম্পাদক তথা ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ স্টাফ সাইডস (জেসিএম)-এর সদস্য মুকেশ সিং গত ২০ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনকে (Nirmala Sitharaman) চিঠি লিখেছেন। দেরি না করে বেতন পরিশোধের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তারা। এরপরই কেন্দ্রীয় সরকার অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ঠিক নয় বলে উল্লেখ করে।

   

এরপর থেকে দেশের আর্থিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। আটকে থাকা ১৮ মাসের বকেয়া মহার্ঘ ভাতা সরকার ছাড় দিলে সরকারি চাকরিজীবী ও অবসরপ্রাপ্তদের টাকার পরিমাণ এক ধাক্কায় অনেকটাই বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে। এটি কর্মচারী এবং পেনশনভোগীদের আত্মবিশ্বাস আরও দৃঢ় করবে যে সরকার সরকারী চাকরিতে থাকাকালীন তারা যে কাজ করেছে তার স্বীকৃতি দিয়েছে।

ভারতীয় রক্ষা মজদুর সংঘের সাধারণ সম্পাদক মুকেশ সিং তাঁর চিঠিতে বলেছেন, “কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী এবং পেনশনভোগীরা ১৮ মাস ধরে বকেয়া মহার্ঘ ভাতা (DA) প্রদান না করা নিয়ে উদ্বিগ্ন। কর্মীরা কোভিড-১৯ মহামারীর সময়ে তৈরি হওয়া চ্যালেঞ্জের ফলে অর্থনৈতিক বিঘ্নগুলি পুরোপুরি বুঝতে পেরেছেন। এ কারণে ২০২০-২১ অর্থবছরের মহার্ঘ ভাতা (DA) ও মহার্ঘ ত্রাণ (DR) এর তিনটি কিস্তি বন্ধ হয়ে যায়। তবে এরপর থেকে দেশের আর্থিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। সরকারের মনে রাখতে হবে, করোনাকালের চ্যালেঞ্জিং সময়ে সব সরকারি কর্মচারী ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা অবদান রেখেছেন। সকলের অবিচল নিষ্ঠা ও কঠোর পরিশ্রমের কারণে দেশে প্রয়োজনীয় সেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়েছে। ফলে এই সময়ে সরকারের এখন ১৮ মাসের বকেয়া ডিএ প্রদান করা উচিৎ।“

da money

এদিকে সরকারের এই পদক্ষেপ নিঃসন্দেহে কর্মীদের মনোবল বাড়াবে। ন্যাশনাল জয়েন্ট কাউন্সিল অফ অ্যাকশনের (এনজেসিএ) বরিষ্ঠ সদস্য এবং অল ইন্ডিয়া ডিফেন্স এমপ্লয়িজ ফেডারেশনের (এআইডিইএফ) সাধারণ সম্পাদক সি শ্রীকুমার বলেন যে পুরানো পেনশন পুনরুদ্ধার সহ কর্মচারীদের স্বার্থ সম্পর্কিত বিষয়গুলি ক্রমাগত উত্থাপিত হচ্ছে।

এসবের পাশাপাশি করোনাকালে বন্ধ থাকা ১৮ মাসের ডিএ/ডিআর পরিশোধের লড়াইও চলছে। ১৮ মাসের বকেয়া ডিএ মেটানোর জন্য ইতিমধ্যেই ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ স্টাফ সাইডকে (জেসিএম) চিঠি দেওয়া হয়েছে মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে। অর্থ মন্ত্রকের একটি রিপ্রেজেন্টেশনও দেওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রায়ের কথাও উল্লেখ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রশ্ন উঠছে, বকেয়া কি পাবেন সকলে?

সম্পর্কিত খবর