৩৫ শতাংশ সহযোগিতা করবে সরকার, এই ব্যবসায় সামান্য বিনিয়োগে মাসে আয় করতে পারবেন লাখ টাকা

এমন কিছু ব্যবসা রয়েছে যেগুলো আপনি শুরু করতে পারেন যে কোনো জায়গায়, সেটা গ্রাম হোক বা শহর। আজ তেমনই এক বিজনেস আইডিয়ার নিয়ে এসেছি, যেখানে থেকে সহজেই আপনি প্রতি মাসে ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। খুব কম বিনিয়োগই এই ব্যবসাতে বেশি লাভ হওয়া সম্ভব।

আজ আমরা আপনাকে যে ব্যবসার কথা বলতে চলেছি তা হল পোল্ট্রি ফার্মিং। আপনি নিশ্চয়ই জানেন যে গ্রাম হোক বা শহর, সবখানেই মুরগির চাহিদা ব্যাপক। বিশেষ ব্যাপার হল যে, এই ব্যবসা শুরু করার ক্ষেত্রে আপনি সরকারেরও বিশেষ সহযোগিতাও পেতে পারেন। হাঁস-মুরগি পালনের জন্য ঋণ নিলে আপনি ২৫ শতাংশ পর্যন্ত ভর্তুকি পাবেন। এরপর আপনি যদি তফসিলি জাতি বা তফসিলি উপজাতির অন্তর্ভুক্ত হন তাহলে আপনি ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত ভর্তুকি পেতে পারেন। পোল্ট্রি ব্যবসা শুরু করার জন্য অনেক আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকেই ব্যবসায়িক ঋণ নেওয়া যেতে পারে।

বর্তমানে ডিম ও মুরগির চাহিদা বেশি
আপনি যদি ছোট পরিসরে ১,৫০০ মুরগি পালন শুরু করেন, তাহলেও আপনি মোটা অঙ্কের টাকা আয় করতে পারবেন। আপনি যদি একটি ছোট আকারের মুরগির খামার শুরু করতে চান, তাহলে ৫০ হাজার থেকে ১.৫ লাখ টাকার মধ্যে খরচ হবে। কিন্তু আপনি যদি এই ব্যবসাটিকে আরও বড় পরিসরে নিয়ে যেতে চান, তবে খরচ বেড়ে প্রায় ৩.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত যেতে পারে। তবে এইজন্য সবার আগে আপনাকে এই ব্যবসার জন্য উপযুক্ত একটি জায়গা খুঁজে বের করতে হবে। বর্তমানে দেশে ডিম ও মুরগির প্রচুর চাহিদা রয়েছে, আবার একই সঙ্গে সম্প্রতি এগুলোর দামও বেড়েছে অনেক। এমতাবস্থায়, আপনি এই ব্যবসা শুরু করে আয় করতে পারেন প্রচুর।

কিভাবে আয় করবেন?
একটি মুরগি প্রায় ২০ সপ্তাহ পর থেকে ডিম দেওয়া শুরু করে এবং বছরে প্রায় ৩০০টি ডিম পাড়ে। তাহলে ১৫০০ মুরগি ১ বছরে প্রায়, ৪ লাখ ৩৫ হাজার ডিম দিতে পারে। এসব ডিম সহজেই বাজারে পাইকারি দামে বিক্রি হবে প্রায় ৫ টাকায়। এমতাবস্থায় আপনি নিজেই অনুমান করতে পারেন এই ডিমগুলো থেকে কত আয় হতে পারে! এছাড়া মুরগির মাংস বিক্রি করেও প্রচুর রোজগার করা সম্ভব পোলট্রি ফরম থেকে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button