পশ্চিমবঙ্গে কবে ঢুকছে বর্ষা, সবার মুখে হাসি ফুটিয়ে দিনক্ষণ জানিয়ে দিল আবহাওয়া দফতর

গ্রীষ্মের দাবদাহে নাজেহাল বাঙালি। রোদের প্রখর তাপ যেন গায়ে ছ্যাঁকা দিচ্ছে। একটু বৃষ্টির জন্য হাহাকার করছে রাজ্যবাসী। এমতাবস্থায় সুখবর নিয়ে এলো আবহাওয়া দফতর। গ্রীষ্মের দাবদাহ থেকে রেহাই দিতে বর্ষা ঢুকলো বলে। ফলে গরমের হাত থেকে রেহাই পেতে আর দিনকয়েক অপেক্ষা করতে হবে রাজ্যবাসীকে। এদিকে আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী আগামী ৩ জুন উত্তরবঙ্গে বর্ষা নিয়ে ঢুকে পড়বে দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমী বায়ু।

প্রসঙ্গত, নির্ধারিত সময়ের তিনদিন আগেই বর্ষা ঢুকেছে কেরলে। আগামী মঙ্গলবার এবং বুধবার কলকাতা সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গে দেখা যেতে পারে কালবৈশাখীর দাপট। আবহাওয়া দফতরের খবর অনুযায়ী রয়েছে প্রবল বৃষ্টিপাতের সাথে ঝোড়ো হাওয়ার সম্ভাবনা। বৃহস্পতিবার দক্ষিণ বঙ্গের জেলাগুলিতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কিছুটা কমবে বলেই জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। তবে আপাতত তাপমাত্রা কমার কোনও সম্ভাবনা প্রায় নেই। উল্টে তাপমাত্রা বাড়তে পারে বলে খবর।

প্রসঙ্গত গত মঙ্গলবার কলকাতার তাপমাত্রা ছিলো ৩৬ ডিগ্রি ছুঁইছুঁই, বৃহস্পতিবার তা বেড়ে ৩৭ হতে পারে বলেই ধারণা। এরসাথে বাড়তে পারে বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ যার ফলে বাড়বে আদ্রতাজনিত অস্বস্তি।

তবে উত্তরবঙ্গের চিত্র একটু অন্যরকম। আগামী পাঁচ দিন ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে গোটা উত্তরবঙ্গ জুড়ে। মঙ্গলবার এবং বুধবার কোচবিহার আর আলিপুরদুয়ারে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে ভিজবে দার্জিলিং, কালিম্পংও।

rain weather

আলিপুরদুয়ার থেকে জানানো হয়েছে যে, বর্তমানে দক্ষিণবঙ্গ লাগোয়া বাংলাদেশের উপরে একটি ঘূর্ণাবর্ত অবস্থান করছে। এছাড়াও রাজস্থান থেকে বাংলাদেশ পর্যন্ত বিস্তৃত হয়ে রয়েছে একটি অক্ষরেখা। দক্ষিণবঙ্গের দিকে যে মেঘ ধেয়ে আসছে তা বাংলাদেশ থেকেই আসছে। এমতাবস্থায় মেঘ যেখানেই থাকবে সেখানেই রয়েছে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। তবে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়লেও ঝড়ের দাপট কমবে বলেই খবর।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button