তাণ্ডব চালাবে ১২০ কিমি বেগে, ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়! চরম সতর্কবার্তা আবহাওয়া দফতরের

মেঘ, বৃষ্টি, শীতের (Winter) খেলায় মেতে উঠেছে আবহাওয়া (Weather)। পাহাড় থেকে সমতল, হাড় কাঁপানো ঠান্ডায় কার্যত নাজেহাল অবস্থা হয়ে গিয়েছে বাংলার মানুষের। শুধু বাংলার কেন, গোটা দেশেরই এক অবস্থা। কিছু কিছু জায়গায় এতটাই ঠান্ডা পড়তে শুরু করে দিয়েছে যে মানুষ ঘর থেকে বেরোতে চাইছেন না।

এদিকে বিগত কয়েকদিন ধরেই বাংলার আকাশের মুখ ভার। সূর্যের তো দেখাই নেই। সেইসঙ্গে কলকাতা শহর সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলায় জেলায় বৃষ্টি শুরু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার থেকে বাংলার আবহাওয়ার উন্নতি হওয়ার কথা ছিল বটে কিন্তু কোথায় কি। উপরন্ত ঠান্ডা যেন আরও জাঁকিয়ে বসেছে। তবে এখনই মিলছে না কিন্তু রেহাই। এবার ধেয়ে আসছে আরও বড় দুর্যোগ। ফের সাইক্লোনের (Cylocne) সতর্কতা জারি করা হল দেশে।

   

ইতিমধ্যে আবহাওয়া দফতরের তরফে মানুষজনকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানানো হয়েছে। উপকূলকে লক্ষ্য করে ১২০ কিমি প্রতি ঘণ্টা বেগে ধেয়ে আসছে একটি নয়া ঘূর্ণিঝড়। আর এই নয়া ঘূর্ণিঝড়টির নাম হল ‘কিরিলি’ (Tropical Cyclone Kirrily)। ফলে আগামী দিনে ফের একবার আবহাওয়া বদলের ইঙ্গিত দিয়েছে হাওয়া অফিস।

যদিও এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব ভারতে কোনওরকমভাবে পড়বে না বলে জানা গিয়েছে। ঘূর্ণিঝড় কিরিলি অস্ট্রেলিয়ার টাউনসভিলের কাছে কুইন্সল্যান্ড উপকূল অতিক্রম করতে শুরু করায় বিপদগ্রস্ত বাসিন্দাদের উদ্ধারে প্রতিরক্ষা বিমান সহায়তা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জরুরি অবস্থার কারণে, আবহাওয়া ব্যুরো প্রতি ঘন্টায় তার পূর্বাভাস আপডেট করছে। আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, ক্যাটাগরি ৩ মাত্রার ঘূর্ণিঝড়টি ধ্বংসাত্মক থেকে অত্যন্ত ধ্বংসাত্মক রূপ নিয়ে টাউন্সভিলের আশেপাশের উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

australia cyclone

আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এই ঝড়ের ফলে বিপুল বৃষ্টিপাত হতে পারে৷ এই অঞ্চলের বিভিন্ন অংশে প্রথমদিন থেকেই প্রচণ্ড বৃষ্টি হতে পারে৷ এই ঝড়ের গতিবেগ হতে পারে ১২০ কিমি প্রতি ঘণ্টায়৷ এই ঝড়ের গতিবেগের পাশাপাশি, এই ঝড়ের গাস্টিং হতে পারে ১৬৫ কিমি প্রতি ঘণ্টা৷

এদিকে ইনিসফেল ও সারিনার মধ্যবর্তী মূল ভূখণ্ডে ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার বেগে বাতাস বইতে শুরু করায় বৃহস্পতিবার ওই অঞ্চলের অনেক স্কুল খোলা হয়নি। তীব্র জলোচ্ছ্বাস ও বন্যার মতো পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে, সেজন্য আগে থেকে প্রস্তুত হয়ে রয়েছে প্রশাসন। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, কিরিলি ঘূর্ণিঝড়টি আপাতত টাউনসভিল থেকে ১৫৫ কিলোমিটার পূর্ব-উত্তর-পূর্ব দিকে রয়েছে৷ এছাড়া উত্তর-উত্তর পশ্চিমে মাক্যায় থেকে ৩২০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে৷

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর