কড়া সিদ্ধান্ত ভিসার, ডেবিট কার্ড পরিষেবা পাবেন না এঁরা! চুক্তি বাতিল করল সংস্থা

সারাবিশ্বে সবচেয়ে বড় পেমেন্ট প্রসেসর কোম্পানি ভিসা (Visa)। বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে বেশি ডেবিট কার্ড (Debit Card) এবং ক্রেডিট কার্ডের (Credit Card) পেমেন্ট ভিসার দ্বারাই হয়। ভিসার পরেই দ্বিতীয় স্থানেও রয়েছে আরেক আমেরিকান কোম্পানি মাস্টারকার্ড (Master Card)। এই দুই কোম্পানি, বিশেষত ভিসা বিশ্বের অধিকাংশ পেমেন্টের জন্য দায়ী। আর এবার ভিসার সাথে এক কোম্পানির চুক্তি নিয়ে নয়া খবর সামনে এসেছে।

ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ FTX এর সাথে বিশ্বের সবচেয়ে বড় পেমেন্ট প্রসেসর ভিসার চুক্তি হওয়ার কথা ছিল। এই চুক্তি বদলে দিতে পারত ভবিষ্যতের পেমেন্ট সিস্টেম ব্যাবস্থাকে। অর্থাৎ এই চুক্তির ফলে আপনি বিভিন্ন ক্ষেত্রে লেনদেনের জন্য ক্রিপ্টো কারেন্সির ব্যবহার করতে পারতেন। কিন্তু FTX এর সাথে সেই চুক্তি বাতিল করে দিয়েছে ভিসা।

রবিবারই ভিসা জানায় যে, ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ কোম্পানি FTX এর সাথে চুক্তি বাতিল করছে তারা। ক্রেডিট কার্ড নিয়ে চুক্তি হওয়ার কথা হচ্ছিল এই ক্ষেত্রে। কিন্তু শেষপর্যন্ত সেই চুক্তি স্বাক্ষর হয়নি। এই নিয়ে সংবাদসংস্থা রয়টার্সকে জানান ভিসার একজন মুখপাত্র। কারণ হিসেবে FTX এর বর্তমান পরিস্থিতিকে দায়ী করেন তিনি।

এমনকী FTX-এর সাথে মার্কিন ডেবিট কার্ড প্রোগ্রামও বন্ধ করেছে ভিসা। অক্টোবরের শুরুতেই FTX এবং ভিসা পেমেন্টের ক্ষেত্রে অংশীদারিত্ব ঘোষণা করে। চুক্তির অধীনে ৪০টি দেশে অ্যাকাউন্ট-লিঙ্কড ভিসা ডেবিট কার্ড অফার করার পরিকল্পনা করে তারা। কিন্তু শেষমেষ পরিণতি পেলনা সেই চুক্তি।

credit card1

আর এজন্য দায়ী FTX এর বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থা। কোম্পানিটি দেউলিয়া হওয়ার পথে। ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ FTX রবিবার জানায় যে, তাদের প্ল্যাটফর্মে “অননুমোদিত লেনদেনের”কারণে কয়েক মিলিয়ন ডলার প্রত্যাহার করেছে তারা। নিজেদের ডিজিট্যাল সম্পদ তারা ‘কোল্ড ওয়ালেট’-এ স্থানান্তর করেছে। তাছাড়া FTX কোম্পানির সিইওর অবস্থাও কাঙাল পর্যায়ের। যেখানে দেউলিয়া ঘোষণা করার আগে তার কাছে ২৩ বিলিয়ন ডলার সম্পদ ছিল, আজ তিনি কিভাবে দেউলিয়া হলেন সেটাও বেশ দুর্ভাগ্যজনক।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button