‘টাকা নয়, আমাদের লক্ষ্য দেশসেবা”, মন ছুঁয়ে যাবে অগ্নিবীর হতে চাওয়া যুবকদের ভাইরাল ভিডিও

দেশের তরুণ সম্প্রদায়কে মজবুত করে তোলার লক্ষ্যে, এবং সেনার শক্তিকে আরো মজবুত করে তুলতে কেন্দ্র গত ১৪ জুন অগ্নিপথ প্রকল্পের ঘোষণা করে। ১৭ থেকে ২১ বছর বয়সী তরুণদের প্রাথমিক ভাবে ৪ বছরের জন্য সেনাবাহিনীতে নিয়োগ করা হবে বলে জানানো হয়। ৪ বছর মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে ২৫ শতাংশ প্রার্থীকে সেনাবাহিনীর স্থায়ী পদে নিযুক্ত করা হবে, এবং বাকিরা অবসর নেবেন সেখান থেকে। যদিও করোনা পরিস্থিতির কারনে ২ বছর নিয়োগ না হওয়ায় এই বছর বয়সের ঊর্ধ্বসীমা বাড়িয়ে ২৩ করা হয়েছে।

কিন্তু এই নিয়োগের পদ্ধতি ঘিরে উত্তাল হয়ে পড়ে সারা দেশ। প্রবল বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে বিহার, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ এবং তেলেঙ্গানাতে। আর এই পরিস্থিতিতে নিজেদের রাজনৈতিক আখের গোছাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন দেশের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। কিন্তু এই আবহের মাঝেই একটি ভিডিও ভাইরাল হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে।

আসলে মাত্র কয়েকদিন আগেই সেনাবাহিনী নতুন নোটিফিকেশন জারি করেছে নিয়োগের। আর তার মাঝেই এই ভিডিওটি তুমুল গতিতে ছড়িয়ে পড়েছে চারিদিকে। সমস্ত বিক্ষোভ, মিছিল ছেড়ে দেশের একদল যুবক নিজেদের স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে অগ্নিবীর। হতে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তাদের এই ভিডিও যেন আবার সকলকে দেশপ্রেমের প্রতি উদ্বুদ্ধ করে তুলল। কিন্তু কি সেই ভিডিও?

আসলে এই ভিডিওটি একদল যুবকের, তারা সকালবেলা নিজদের প্রস্তুতি শেষ করে একটি ভিডিও রেকর্ড করে ফেলেন। সেখানে তাদের একজনকে বলতে শোনা যায় যে, “আমরা অগ্নিবীর হওয়ার জন্য তৈরি। আপনারাও মাঠে আসুন এবং নিজেদেরকে প্রস্তুত করুন। আমাদের লক্ষ্য হল দেশসেবা। চার বছরই হোক কিংবা দশ বছর বা কুড়ি বছর, আমরা শুধু দেশের সেবা করতে চাই।” শুধু তাই নয় তারা সেনাবাহিনীর উর্দিও পরতে চান। কিন্তু তারপরই যে কথাটি বলেন তা মানুষের হৃদয়কে স্পর্শ করে যায়।

এরপর ভিডিওতে ওই যুবক আরো বলেন যে, আমরা উর্দিটি পরতে চাই। যদি টাকা উপার্জনের কথাই হত তাহলে আমরা অন্য কাজ করতাম কিন্তু, আমাদের উর্দির শখ রয়েছে। ছয় বছর ধরে চেষ্টা করছি। এটা আমাদের সপ্তম বছর। তাও চেষ্টা করছি এবং সেনাবাহিনীতে যোগদানের ইচ্ছে নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছি।” তারা তাদের এই ভিডিওতে সারা দেশবাসীকে আবারও একবার এটা মনে করিয়েছেন যে, সেনাবাহিনী শুধু এমপ্লয়মেন্ট এর যায়গা নয়। সেখানে দেশপ্রেম, দেশের প্রতি ভক্তি, কাজের প্রতি নিষ্ঠা, চরম পরিশ্রম, এবং নিজের সর্বোচ্চ বলিদান দিয়ে হলেও মাতৃভূমির রক্ষাই প্রধান কর্তব্য। এই ভিডিও কার্যত সেই সব মানুষের মুখে চড় মেরেছে, যারা সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে চেয়ে দেশমাতৃকারই ক্ষতি করেছে কয়েকদিন আগে।

প্রসঙ্গত নেটিজেনরা এই ভিডিও ঝড়ের গতিতে শেয়ার করছেন। আসলে বাকি সমস্ত চাকরি রোজগারের জন্য হলেও সেনাবাহিনী যে শুধুই রোজগারের একটা পথ নয় সেই কথা ভুলে গিয়েছিলেন তারা। এই যুবকদের ভিডিও যেন সেই কথাটাই আবারো সারা দেশবাসীকে মনে করিয়ে দিল।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button