লকডাউনে চাকরি খুইয়ে দুই বন্ধু মিলে শুরু করেন ব্যবসা, দু’ছর পর ১০ কোটিতে বিক্রি হল কোম্পানি

করোনভাইরাস (Coronavirus) প্রাদুর্ভাবের পর দেশব্যাপী লকডাউনে দুই পুরানো বন্ধু আকাশ মাস্কে এবং আদিত্য কীর্তনের কেরিয়ার সমস্যায় পড়েছিল। আকাশ এবং আদিত্য একটি কোম্পানিতে প্রকৌশলী হিসাবে কাজ করছিলেন, কিন্তু কোভিড মহামারী তাদের জীবনের গতিপথ পরিবর্তন করে দেয়। লকডাউনের প্রথম মাস তিনি ফিল্ম দেখে কাটিয়েছিলেন, কিন্তু লকডাউন অব্যাহত থাকায় তিনি চাকরি হারান।

ঔরঙ্গাবাদের আশেপাশে অনেক শিল্প ইউনিট রয়েছে এবং উভয়েই অন্য কোনও কোম্পানিতে তাদের ভাগ্য চেষ্টা করতে পারতেন, কিন্তু চাকরির জন্য আবেদন না করে নিজের ব্যবসা শুরু করার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। কীভাবে একজন সফল ব্যবসায়ী হওয়া যায় সে বিষয়ে কিছু বই পড়ার পর তাঁরা এই দিকে তার অভিপ্রায় নিশ্চিত করেছেন। কিন্তু কী করবেন ভেবে পাচ্ছিলেন না তারা।

প্রথমে একটি স্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে মাংস এবং হাঁস-মুরগির প্রক্রিয়াকরণ শুরু করেন, এরপর তাঁরা মাংসের বাজারে প্রবেশের সিদ্ধান্ত নেন। দুজনেই প্রাথমিকভাবে তাদের পরিবারের কাছ থেকে সম্পূর্ণ সমর্থন পাননি। আদিত্য PTI-কে বলেছেন, “আমাদের পরিবারগুলি প্রাথমিকভাবে মনে করেছিল যে আমরা যে ধরনের কাজ করছি তাতে কেউ তাদের মেয়েকে আমাদের সঙ্গে বিয়ে করাতে চাইবে না। কিন্তু পরে আমাদের পরিবারের সদস্যরা পাশে এসে দাঁড়ায়।

তাঁরা ১০০ বর্গফুট এলাকায় বন্ধুদের সহায়তায় জমা ২৫ হাজার টাকার তহবিল দিয়ে ‘অ্যাপাটিটি’ নামে একটি কোম্পানি শুরু করেছিলেন, যার এক মাসের টার্নওভার এখন মাসে ৪ লক্ষ টাকা ছাড়িয়েছে। ধীরে ধীরে তাদের ব্যবসা বাড়তে থাকে। এরই মধ্যে শহরভিত্তিক একটি কোম্পানি ফাবি কর্পোরেশনের নজরে তাদের উপর পড়ে।

ফ্যাবি সম্প্রতি অ্যাপেটাইটের বেশিরভাগ শেয়ার ১০ কোটি টাকায় কিনে নিয়েছে। যদিও আদিত্য এবং আকাশ কিছু অংশীদারিত্বের সাথে এটির সাথে যুক্ত থাকবেন। ফাবি’র পরিচালক ফাহাদ সৈয়দ বলেন, ‘অ্যাপাটিটি’ ব্র্যান্ডটি চুক্তির পরও চলবে এবং এর ব্যানারে নতুন পণ্য বাজারে আসবে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button