দুঃখের পাহাড় ভেঙে পড়ল দীপঙ্কর দে’র মাথায়! অল্প বয়সেই প্রয়াত অভিনেতার প্রিয়জন, শোকস্তব্ধ টলিপাড়া

বরাবরই শিরোনামে উঠে আসেন টলিউডের (Tollywood) কিংবদন্তী অভিনেতা (Actor) দীপঙ্কর দে (Dipankar De)। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটল না। কিন্তু এবারের কারণটা একটু মর্মান্তিক। কেন জানেন? এবার তিনি নিজের বড় মেয়েকে চিরতরে হারালেন।

অভিনেতা নিজেই সে কথা সকলকে জানিয়েছেন। অভিনেতার বর্তমান বয়স ৭৯ বছর। আর এই বয়সে এসে নিজের মেয়েকে হারানো মোটেই মুখের কথা নয়। জানা গিয়েছে, অভিনেতার বড় মেয়ে বৈশালী দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। এদিকে অসুস্থ থাকার দরুণ তাঁকে বাইপাস সংলগ্ন একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল। সেখানেই অভিনেতার বড় মেয়ে হঠাৎ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বুধবার নিজের শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বলে খবর।

এদিকে অভিনেতার এহেন চরম দুঃখের সময়ে পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী ও অভিনেত্রী দোলন রায় (Dolon Roy)। পরিবার সূত্রে খবর, কিডনি এবং হৃদযন্ত্রের সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন বৈশালী কুরিয়াকোস। তাঁর স্বামীর নাম অনিল কুরিয়াকোস। তিনিও অবশ্য এই বিনোদন দুনিয়ার সঙ্গেই যুক্ত। স্বাভাবিকভাবেই এরকম কিংবদন্তী অভিনেতার মেয়ের আকস্মিক প্রয়াণের খবর টলিউডেও শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

নিজের মেয়ের মৃত্যু প্রসঙ্গে মন্তব্য করেছেন অভিনেতা দীপঙ্কর দে। তিনি সংবাদমাধ্যম কে বলেন, “গত কালের ঘটনা। বড়সড় হার্ট অ্যাটাক হয়। তাই আর শেষরক্ষা করা গেল না। এর থেকে বেশি আর কথা বলতে পারছি না এখন।” এদিকে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন খোদ অভিনেতার দ্বিতীয় স্ত্রী দোলন রায়। তাও নিজেকে সামলে তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানান, “মেয়ে চলে গিয়েছে। এ অবস্থায় কোনও বাবা কি ঠিক থাকতে পারেন? খুবই ভেঙে পড়েছেন উনি। আমরা গিয়েছিলাম। এ পরিস্থিতিতে আমি ওর পাশে থাকব না, এটা কি কখনও হয়! কিন্তু শুটিং থেকে ছুটি পাইনি। তাই কাজে বেরিয়েছি। তবে টিটো খুবই ভেঙে পড়েছে।”