ভারতের একমাত্র গ্রাম, যেখানে প্রতিটি ঘরে ঘরে রয়েছে IIT ইঞ্জিনিয়ার! লোকে বলে ভিলেজ অফ IITians

আমাদের দেশে অভাব নেই মেধাবী শিক্ষার্থীর। একজনকে সাফল্য পেতে দেখলে অন্যজনও অনুপ্রাণিত হয় সেই সাফল্যের দ্বারা। কিন্তু আজও দেশে এমন অনেক ছোট গ্রাম আছে যেখানে পড়াশোনার সমস্ত সুযোগ-সুবিধা উপলব্ধই নেই। কিন্তু যাদের মধ্যে কিছু করার উদ্যম থেকে সে জীবনে সফলতা নিয়ে আসবেই। পাশের রাজ্য বিহারে রয়েছে এমন একটি ছোট গ্রাম, যেটি ইতিমধ্যেই দুর্দান্ত সাফল্য অর্জন করেছে।এই গ্রামকে অনেক সময় বলা হয় আইআইটিিয়ানদের গ্রাম। তবে একটা সময় ছিল যখন এই গ্রামটি বিখ্যাত ছিল তাঁতশিল্পের জন্য। কিন্তু বর্তমানে এই গ্রামটির নামই হয়ে গেছে আইআইটিয়ানদের গ্রাম।

বিহারের গয়া জেলার পাটোয়া টলি গ্রাম বিখ্যাত আইআইটিতে (IIT) পাওয়া সফলতার জন্য। এই গ্রামের ছেলেরা গত 24 বছর ধরে আশ্চর্যজনক কিছু করছে, যা সম্ভবত দেশের অন্য গ্রামে দেখাই যায় না। প্রতি বছর পাটোয়া টলি গ্রামে কয়েক ডজন ছাত্র নির্বাচিত হয় আইআইটি এবং এনআইটি-এর জন্য।একসময় বিহারের ম্যানচেস্টার নামে বিখ্যাত ছিল এই পাটোয়া টলি গ্রাম। এখানে প্রতিটি বাড়িতে এবং প্রতিটি রাস্তায় পাওয়ারলুম ছিল। আগে পাটোয়াতলি তাঁত থেকে চাদর, গামছা, গামছা তৈরির জন্য বিখ্যাত ছিল কিন্তু এখন এই গ্রামটি আইআইটিিয়ানদের জন্য পরিচিত। এই গ্রামের প্রতিটি বাড়িতে একজন আইআইটি ইঞ্জিনিয়ার আছে।

প্রতি বছর পাটোয়া টলি গ্রামে কয়েক ডজনেরও বেশি ছাত্র JEE-তে নির্বাচিত হয় তো এই গ্রামের সাফল্যের রহস্য হলো এই গ্রামে রয়েছে একটি লাইব্রেরি। যা গ্রামের লোকজন নিজেরাই আর্থিক সহায়তায় পরিচালনা করে। প্রথবারের মতো 1996 সালে সেখানকার ছেলেমেয়েরা আইআইটি-তে ভর্তি হতে শুরু করে, তারপরে সেই গ্রামের শিশুদের মধ্যে একটি আলাদা রকমের প্রতিভা দেখা দেয় এবং সমস্ত শিশু কঠোর পরিশ্রম করতে শুরু করে। ফলে প্রতি বছর সেখানকার ছেলেমেয়েরা আইআইটিতে সিলেক্ট হতে থাকে।

আসলে 1990 এর দশকে, যখন পাটোয়া টলির জন্য ছিল অর্থনৈতিক মন্দার সময়। তখনই পাটোয়াতলীর তাঁতিরা তাদের সন্তানদের লেখাপড়ায় মনোযোগ দিতে শুরু করেন। এরপর থেকে আজ অবধি পাটোয়াতলী গ্রামের শিশুরা প্রতিনিয়ত তাদের এলাকার নাম উজ্জ্বল করে আসছে। পাটওয়াটলির প্রাক্তন ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্ররা একত্রে নবপ্রয়াস নামে একটি সংগঠন গড়ে তুলেছে যা আইআইটি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের তাদের পড়াশোনায় সাহায্য করে। পাটোয়াতলী গ্রামটি তাঁতিদের জনসংখ্যার জন্য পরিচিত। কিন্তু এখানকার 10 হাজার জনসংখ্যার মধ্যে এখন পর্যন্ত বেশিরভাগই যুক্ত হয়ে গেছেন ইঞ্জিনিয়ারিং এর সাথে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button