ভারতের প্রথম বিকলাঙ্গ ফুড ডেলিভারি বয় গণেশ, যিনি বাধ্য হয়ে নয় দৃঢ়ভাবে বাঁচতে শিখেছেন

আমরা প্রায়শই বলে থাকি যে, অদম্য ইচ্ছে আর কঠিন পরিশ্রম করার মানসিকতা থাকলে একদিন সবাই নিজের জীবনে সফল হবেনই। তবে এই সফলতা যখন দিব্যঙ্গ মানুষের হয় তখন কিছুটা বিস্মিত হতে হয় বৈকি! আজ আমরা এমন একজন মানুষের কথা বলতে চলেছি যিনি হাজারো লোকের ভুল ভেঙেছেন।

অনেকের মতেই প্রতিবন্ধী মানুষজন কিছুই করতে পারেনা। তারা গণেশ মুরুগান এর গল্প জানেন না। তিনি হুইলচেয়ারে করেই খাবার ডেলিভারি করেন। তার আত্মবিশ্বাসের কারণেই তিনি নিজের সমস্ত প্রতিবন্ধকতাকে এড়িয়ে আজ অর্থনৈতিক দিক দিয়ে সাবলীল হতে পেরেছেন।

এই গণেশ মুরুগানের বাড়ি চেন্নাইতে। তার এই অসম্ভবকে সম্ভব করার গল্প আমরা কোনোদিনই জানতে পারতাম না, যদিনা আইপিএস অফিসার দীপাংশু কাবরা তার টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এই গল্প শেয়ার করতেন। গণেশের একটি ছবি শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, “দেখুন ভারতের প্রথম হুইলচেয়ার ফুড ডেলিভারি বয় গণেশ মুরুগানকে। তিনি হুইলচেয়ারে করে খাবার সরবরাহ করেন। চেন্নাইয়ের প্রতিবন্ধী গণেশ মুরুগান পরিস্থিতির সঙ্গে আপস না করে নিজের উপার্জনের পথ খুঁজে পান এবং আত্মনির্ভরতার পথ নেন। তিনি সেই সবার জন্য অনুপ্রেরণা, যারা লড়াই করার পরিবর্তে নিজেদের জীবনে অদৃষ্টকে দুষেই হাল ছেড়ে দেয়”

এছাড়া দীপাংশু কাবরা জানিয়েছেন যে গণেশের এই বিশেষ হুইলচেয়ারটি আইআইটি মাদ্রাজের একটি স্টার্ট-আপ ডিজাইন করেছে। এই টু-ইন-ওয়ান মোটর চালিত হুইলচেয়ারটিকে একটি মাত্র বোতাম টিপেই আলাদা করা যায় এবং চেয়ারের পিছনের অংশটি একটি সাধারণ হুইলচেয়ারে পরিণত হয়। এছাড়া দীপাংশু কাবরা এও জানিয়েছেন যে, এই স্টার্ট আপটি এখনো অবধি ১৩০০ হুইলচেয়ার তৈরি করেছেন। এছাড়া একবার চার্জ হতে ৪ ঘণ্টা সময় নেয় এবং ২৫ কিমি দূরত্ব অতিক্রম করতে পারে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button