মহাকাশে দু’দুটি রকেট পাঠাচ্ছে ISRO! ২ দিনেই লঞ্চ হবে চন্দ্রযান-৪

মহাকাশে ফের একবার ভারতের দাপট হবে। আর কিছুদিনের মধ্যে নতুন করে বড় ঘটনার সাক্ষী থাকতে চলেছেন দেশবাসী। আর এর নেপথ্যে ফের একবার ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ISRO। চন্দ্রযান ৩, Aditya L1 সহ আরো বেশ কিছু মিশন লঞ্চ করে ইতিমধ্যে সপ্তম গগনে রয়েছে ভারত তথা ইসরো। তবে দাঁড়ান, এখানেই কিন্তু শেষ না, এবার ইসরো আরও একটি বড় ঘটনা ঘটাতে চলেছে।

ISRO-র পরবর্তী মিশন কী? তা নিয়ে নতুন করে বড় তথ্য দিলেন ইসরোর চেয়ারম্যান এস সোমনাথ। চন্দ্রযান ৩ মিশনের সাফল্যের পর এবার চন্দ্রযান ৪ নিয়ে কোমর বাঁধছে ইসরো বলে খবর। হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন। এখন প্রশ্ন উঠছে, কবে লঞ্চ হবে এই চন্দ্রযান ৪? আর এর মিশনই বা কী হবে? তা বিস্তারিত জানতে ঝটপট পড়ে ফেলুন আজকের এই প্রতিবেদনটি।

   

ইতিমধ্যে চাঁদে চন্দ্রযান-৩ সফলভাবে অবতরণ করে ইতিহাস সৃষ্টি করেছে ইসরো। চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে এই যান অবতরণ করিয়ে ইতিহাস গড়েছে ভারত। এই সাফল্যে বিজ্ঞানীসহ সারাদেশের মানুষের চোখে আনন্দের জল দেখা গিয়েছিল। যাইহোক, এবার ইসরো এখন চন্দ্রযান -৪ এর জন্য জোরদার প্রস্তুতি নিচ্ছে। তবে একটি নয়, দুটি রকেট নিয়ে মিশন লঞ্চ করবে ইসরো। অর্থাৎ এবার চাঁদে যাবে দুটি রকেট।

এবার চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণের পর পাঠানো চন্দ্রযানও সেখান থেকে কিছু নমুনা নিয়ে ফিরে আসবে। তবে চন্দ্রযান-৪ উৎক্ষেপণের এখনও দেরি আছে। এটি ২০২৮ সালের আগে চালু হওয়ার কথা জানিয়েছেন ইসরোর চেয়ারম্যান।

chandrayaan 4
ইসরো জানিয়েছে যে প্রথমবারের মতো ইসরো একই মিশন সম্পন্ন করতে দুটি রকেট উৎক্ষেপণ করবে। এবার চন্দ্রযান-৪ নিজের সাথে চাঁদের পাথর এবং মাটি (রেগোলিথ) নিয়ে ফিরবে। দুটি ভিন্ন রকেট, ভারী উত্তোলক LVM-3 এবং ISRO-এর ওয়ার্কহরস PSLV, একই চন্দ্র মিশনের জন্য বিভিন্ন পেলোড বহন করবে এবং বিভিন্ন দিনে উৎক্ষেপণ করা হবে।

ইসরো চেয়ারম্যান এস. সোমনাথ সম্প্রতি জাতীয় মহাকাশ বিজ্ঞান সেমিনারে বলেছেন যে চন্দ্রযান -৪ মিশনের লক্ষ্য হল চন্দ্র পৃষ্ঠ থেকে মাটির নমুনা সংগ্রহ করা এবং সেগুলিকে পৃথিবীতে ফিরিয়ে আনা যাতে বিজ্ঞানীরা সেগুলি নিয়ে অধ্যয়ন করতে পারেন। আগের চন্দ্রযান মিশনে ২-৩টি মহাকাশযান থাকলেও চন্দ্রযান-৪-এ থাকবে পাঁচটি। এই অংশগুলো হলো- প্রপালশন মডিউল (মোশন কন্ট্রোল), ডিসেন্ডার মডিউল (চাঁদে অবতরণ), অ্যাসেন্ডার মডিউল (চাঁদ থেকে ফিরে আসা), ট্রান্সফার মডিউল (এক কক্ষপথ থেকে অন্য কক্ষপথে যাওয়া) এবং রি-এন্ট্রি মডিউল ।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর