50MP ক্যামেরা, 5000 mAh ব্যাটারি! চাইনা কোম্পানিকে টক্কর দিয়ে দুর্ধর্ষ ফোন লঞ্চ ভারতে

বাজারে ফোনের চাহিদা ক্রমেই বাড়ছে। রোজকার জীবনের প্রয়োজনে, অপ্রয়োজনে মোবাইল ফোন এখন অবিচ্ছেদ্য একটি অংশ। নিত্য নতুন ফিচারের ভিড়ে অনেকেই নিজের পছন্দে ফোন কিনতে পারেন না। তার অন্যতম কারণ অবশ্যই দাম। ফোনের কোয়ালিটি, ব্র্যান্ডের সঙ্গে দাম ওঠানামা করে। কিন্তু দাম বেশি বলে কি ফোন নেবেন না?

নিশ্চয়ই নেবেন। যাদের পকেট খুব একটা ভারী নয়, কিংবা কম দামের মধ্যে রেগুলার ফোন দরকার তাদের জন্য চলে এসেছে দারুণ একটা সমাধান। ভারতবাসীর সমস্যার সমাধান করবে ভারতীয় ব্র্যান্ড। বাজারে ছেয়ে যেতে চলেছে মেড ইন ইন্ডিয়া একটি ফোন। বিদেশি বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বছরের পর বছর দিয়ে ভালো ফোন লঞ্চ করে চলেছে লাভা। LAVA স্মার্টফোন লঞ্চ করে মূলত সর্বস্তরের ক্রেতাদের কথা মাথায়।

   

তাদের ফোনে যেমন ফিচারের সম্ভার থাকে, তেমনই মধ্যবিত্তের কথা মাথায় রেখে দাম রাখা হয় অনেক কম। লাভা নতুন যে স্মার্টফোন লঞ্চ করেছে সেটার দাম ১০ হাজার টাকার ভিতরে।  ভারতীয় কোম্পানির পক্ষ থেকে বাজারে নিয়ে আসা নতুন ফোনটির নাম Lava O2। ভারতীয় বাজারে এই ফোনের দাম রাখা হয়েছে ১০ হাজার টাকার মধ্যে। থাকছে দুর্দান্ত ক্যামেরা। ফোনে দেওয়া থাকতে পারে ৫০ মেগাপিক্সলের ভালো ক্যামেরা। যারা ছবি তুলতে পছন্দ করেন তাদের জন্যও এই হ্যান্ডসেটটি বেশ উপযোগী হিসেবে প্রমাণিত হতে পারে।

Lava O2- এর দাম রাখা হয়েছে মাত্র ৭ হাজার ৯৯৯ টাকা। দাম কম বলে যে ফিচার একেবারে নেই তেমনটা কিন্তু নয়। যথেষ্ট ফিচার দিয়ে তবেই আসছে এই ফোন। দামে কম, মানে ভালো- এটাই ভারতীয় কোম্পানির লাভার মোটো। ৮ জিবি র‍্যাম, পাঞ্চ-হোল ডিসপ্লে, ফোনের পিছনে ৫০ মেগাপিক্সেল ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ দেওয়া রয়েছে বলে বিভিন্ন রিপোর্টের মাধ্যমে জানা গিয়েছে। Lava O2 আগামী চলতি বছরের ২৭ মার্চ থেকে ভারতীয় গ্রাহকদের জন্য উপলব্ধ হবে। অ্যামাজন এবং লাভা ই-স্টোরের মাধ্যমে পাওয়া যাবে ফোনটি।

Lava O2 Moto g04 এর সঙ্গে সরাসরি প্রতিযোগিতা করবে। লাভার আলোচ্য ফোনটি ইম্পেরিয়াল গ্রিন, ম্যাজেস্টিক পার্পল এবং রয়্যাল গোল্ড- এই তিনটি রঙে পাওয়া যাবে। ফোনে ৬.৫ ইঞ্চি HD+ পাঞ্চ-হোল ডিসপ্লে রয়েছে যা HD+ রেজোলিউশন এবং ৯০Hz রিফ্রেশ রেট সাপোর্ট করবে। ১২৮ গিগাবাইট ইউএফএস ২.২ ইন্টারনাল স্টোরেজ সাপোর্ট করে। ফোনে অন্যতম বৈশিষ্ট্য 616 অক্টা-কোর প্রসেসর।

ছোটোবেলা থেকে খেলাধুলোর প্রতি ভালোবাসা। এখন পেশা। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে লিখছে বিগত কয়েক বছর ধরে।

সম্পর্কিত খবর