চন্দ্রযান, আদিত্য L1-র পর গগনযান! ফের বিশ্ব কাঁপাবে ISRO, প্রকাশ্যে এল ৪ মহাকাশচারীর পরিচয়

ইসরো (Indian Space Research Organisation)-র গগনযান (Gaganyaan) মিশনকে ঘিরে আশায় বুক বেঁধেছেন সমগ্র দেশবাসী। ইতিমধ্যে চন্দ্রযান ৩ (Chandrayaan-3), আদিত্য এল ১ (Aditya-L1) মিশন নিয়ে গোটা বিশ্বজুড়ে আলোচনা হচ্ছে। এরইমাঝে এবার ভারতের (India) এই গগনযান মিশন নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। আজ মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী চার মহাকাশচারীর নাম ঘোষণা করেন, যাদের হাতে গগনযান মিশনের মাধ্যমে মহাকাশে তেরঙ্গা উত্তোলনের দায়িত্ব থাকবে।

এই চার মহাকাশচারী দেশের প্রথম মানব মহাকাশ ফ্লাইট গগনযানের জন্য প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। জানা গিয়েছে, প্রশান্ত বালাকৃষ্ণন নায়ার, অঙ্গদ প্রতাপ, অজিত কৃষ্ণন এবং শুভাংশু শুক্লা গগনযান মিশনের অধীনে মহাকাশে যাবেন। তিরুবনন্তপুরমের কাছে থুম্বায় বিক্রম সারাভাই স্পেস সেন্টারে (ভিএসএসসি) প্রধানমন্ত্রী মোদী চার মহাকাশচারীর হাতে ‘অ্যাস্ট্রোনটস উইং’ তুলে দেন। এমন পরিস্থিতিতে আসুন জেনে নেওয়া যাক এই চার মহাকাশচারী সম্পর্কে।

   

এক রিপোর্ট অনুযায়ী, গ্রুপ ক্যাপ্টেন প্রশান্ত বালাকৃষ্ণন নায়ার কেরলের বাসিন্দা। রাশিয়ায় স্পেস ফ্লাইট মিশনের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন তিনি। তিনি ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি থেকে স্নাতক হন এবং ১৯৯৯ সালে আইএএফ-এ কমিশনড অফিসার হিসাবে যোগ দেন। তিনি একজন ফাইটার পাইলট, যিনি সুখোই যুদ্ধবিমান চালাতে পারদর্শী। তিনি আলাবামার ইউএস এয়ার কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজ থেকে প্রথম সারির স্নাতক।

অজিত কৃষ্ণন: গগনযান মিশনের জন্য নির্বাচিত চার ‘মহাকাশ নায়ক’। দলে রয়েছেন গ্রুপ ক্যাপ্টেন অজিত কৃষ্ণনও। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, চার ক্রু সদস্যের মধ্যে মাত্র তিনজনকে গগনযান মিশনের জন্য বেছে নেওয়া হবে। আরও জানা গেছে যে ১২ জনকে সংক্ষিপ্ত তালিকাভুক্ত করা হয়েছে এই চারজনকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

isro gaganyaan

ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ISRO জানিয়েছে, গ্রুপ ক্যাপ্টেন অঙ্গদ প্রতাপ এবং বাকি তিনজনও ১৩ মাসের জন্য রাশিয়ায় প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। গগনযান মিশনের আওতায় মহাকাশেও ভারতের পতাকা উত্তোলন করতে চলেছেন তিনি।

শুভাংশু শুক্লা: উইং কমান্ডার শুভাংশু শুক্লাও রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর ইউরি গ্যাগারিন কসমোনট ট্রেনিং সেন্টারে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। এই মিশনের আওতায় মহাকাশেও যেতে চলেছেন তিনি।

গগনযান মিশনের আওতায় পৃথিবী পৃষ্ঠ থেকে ৪০০ কিলোমিটার উচ্চতায় চারজন নভোচারীকে কক্ষপথে পাঠানো হবে। ইসরোর এই মিশনটি তিন দিনের। মিশন শেষ করে আরব সাগরে অবতরণ করবে এই নভোচারীরা।

 

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর