স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ভরসায় পড়াশোনা, শেষে যা পরিণতি হল পড়ুয়ার! শুনে চোখে জল আসবে

কলকাতাঃ  রাজ্য জুড়ে ঘটা করে কার্ড বিলি করা হলেও মিলল না স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের টাকা। সেই কার্ডের সাহায্য নিয়েই MBA করতে গিয়ে বিপাকে বীরভূমের সিউড়ির এক ছাত্র।

সিউড়ির বাসিন্দা অমিতাভ মোহান্ত দুর্গাপুরের একটি বেসরকারি কলেজের প্রথম বর্ষের এমবিএ (MBA) স্টুডেন্ট। বাবা পেশায় খালাসী, কিন্তু তিনি দারিদ্র্যতাকে পেছনে ফেলে চোখে উজ্জ্বল ভবিষ্যতের স্বপ্ন নিয়ে এমবিএ পড়ানোর জন্য পাঠিয়েছিলেন দুর্গাপুরের একটি কলেজে। গতবছর বীরভূমের জেলাশাসক নিজে তার হাতে ক্রেডিট কার্ড তুলে দেন। সেই ভরসাতেই এমবিএ পড়তে যায় অমিতাভ। কিন্তু কার্ড হাতে পেলেও হাতে পেলোনা টাকা।

জানা যাচ্ছে গতবছর বীরভূমের জেলাশাসক নিজে তার হাতে ক্রেডিট কার্ড তুলে দেন। স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ভরসায় দুর্গাপুরের একটি বেসরকারি কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন অমিতাভ। এরপর তিনি লোনের আবেদন করেন স্থানীয় ইউকো ব্যাঙ্কে। অভিযোগ, ব্যাঙ্কে গিয়ে খালি হাতে ফিরতে হয়েছে। মেলেনি স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের টাকা। বারবার অসুস্থ মা ও বাবাকে নিয়ে ব্যাঙ্কে ছুটে গিয়েছে অমিতাভ। কিন্তু কখনও আশ্বাস মিলেছে। কখনও মিলেছে ধমক। তারপর ২৬ ফেব্রুয়ারি ব্যাঙ্কের তরফ থেকে জানানো হয় কোনও লোন তাকে দেওয়া যাবেনা।

ব্যাঙ্ক থেকে টাকা না মেলায় এরপর বাধ্য হয়ে প্রায় ১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা বাজার থেকে ধার করে অমিতাভকে কলেজ কর্তৃপক্ষকে শোধ করতে হয়েছে বলে জানিয়েছে অমিতাভ। বাড়িতে মা গুরুতর অসুস্থ। উচ্চ শিক্ষার পর জীবনে প্রতিষ্ঠিত হয়ে সংসারের হাল ফেরাতে চেয়েছিলেন অমিতাভ, কিন্তু এখন ব্যক্তিগত ধার শোধ করে দ্বিতীয় বর্ষের টাকা কীভাবে জোগাড় হবে তাতেই মাথায় হাত অমিতাভের পরিবারের।

student suri 1647858644243 1647858647575

সব মিলিয়ে অমিতাভ মোহন্ত ও তার পরিবারের দাবি বিষয়টি যাতে জেলা প্রশাসন খতিয়ে দেখে। তাদের ন্যায্য টাকা যেন তারা পান। যদি টাকাই না পাওয়া যায় তাহলে এরকম মিথ্যা প্রতিশ্রুতির প্রয়োজন কী? নিজের ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অমিতাভ মোহান্ত।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button