ভারতীয় রেলের সঙ্গে শুরু করুন ব্যবসা, এই সহজ উপায়ে ট্রেন ষ্টেশনে দোকান খুলে আয় করুন মোটা টাকা

ভারতীয় রেল (Indian Railways) সেজে উঠছে নবরূপে। ভারতীয় রেলের আধুনিকরণ হওয়ায় পাল্লা দিয়ে বাড়ছে যাত্রী সংখ্যা। যাত্রীদের সুবিধার্থে সবসময়ই উদারহস্ত রেল। কিন্তু আপনি কি জানেন রেলের দেওয়া সুযোগ সুবিধা থেকে অনেক টাকা রোজগার করতে পারবেন আপনিও! কিন্তু কীভাবে ভাবছেন তাই তো? চলুন জানাচ্ছি আপনাদের।

রেল স্টেশন (Rail Station) চত্বরে বিভিন্ন রকম সুযোগ-সুবিধা প্রদানের ক্ষেত্রে দোকান খোলার অনুমতিও দিয়ে থাকে। আর সেখান থেকে হতে পারে দারুণ রোজগার। যেহেতু স্টেশনে প্রায় সবসময়ই যাত্রীদের ভিড় লেগে থাকে তাই স্টেশনে দোকান শুরু করার মাধ্যমে আপনারও বিপুল লাভ হতে পারে।

তবে স্টেশনে ব্যবসা শুরু করার সময় আপনাদের মাথায় রাখতে হবে যাত্রীদের নিত্যনৈমিত্তিক চাহিদার কথা। ভ্রমণের সময় তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসের স্টল খুললেই আপনি বিরাট অংকের লাভ করবেন। তবে এই দোকান খোলার জন্য কিছু নথিপত্রের প্রয়োজন পড়ে। সেই দিকটা মাথায় রেখে এগোতে হবে। কিন্তু সবার প্রথমে দেখতে হবে যে, আপনি যে রেলস্টেশনে দোকান নিতে ইচ্ছুক সেখানে দোকান পাওয়া যাবে কি না সেই তথ্যটি জানতে হবে।

স্টেশনে কোন প্রকার দোকান খুললে লাভ হবে: রেল কর্তৃপক্ষ আপনার কাছ থেকে দোকানের সাইজ এবং অবস্থান অনুযায়ী ফি নেয়। সেখানে আপনি নিজের পছন্দ মত ব্যবসা যেমন বইয়ের স্টল, চা ও কফির স্টল, খাবারের স্টল, সংবাদপত্রের স্টল করতে পারেন। তবে এই স্টলগুলি শুরু করার ক্ষেত্রে আপনার খরচ হতে পারে প্রায় ৪০ হাজার থেকে ৩ লক্ষ টাকার মধ্যে। আপনার বাজেট কম হলে রেলের কাছ থেকে ছোট স্টলেরও অনুমতি নিতে পারেন।

কী কী নথি লাগবে: এবার আপনি যদি রেল স্টেশনে দোকান খুলতে চান, সেক্ষেত্রে আপনাকে অতিঅবশ্যই ভারতের নাগরিক হতে হবে। আর আপনার আধার কার্ড, প্যান কার্ড, ভোটার আইডি কার্ড বা পাসপোর্ট থাকা বাধ্যতামূলক।

money man

কিভাবে আবেদন করবেন: প্রথমে IRCTC এর ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখে নিন আপনি যে স্টেশনে দোকান শুরু করতে চান তার জন্য কোনো টেন্ডার জারি হয়েছে কি না। টেন্ডার বেরোনোর প্রক্রিয়ার পর আপনি সেই ফর্ম পূরণ করে সেটিকে রেলওয়ের জোনাল অফিস বা ডিআরএম অফিসে জমা দিতে হবে। অবশ্য আজকাল এই কাজ অনলাইনেও হচ্ছে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button