না চাইতেই কিনে দেন ক্রিকেটের সব কিছু! ধোনি, যুবরাজ নন! এই প্লেয়ার হলেন রিঙ্কুর রোল মডেল

ভারতীয় ক্রিকেটের (Indian Cricket) নতুন ব্যাটিং সেনসেশন রিঙ্কু সিং (Rinku Singh) টিম ইন্ডিয়ার (Team India) প্রবেশ দ্বার পর্যন্ত পৌঁছানোর জন্য যে কঠিন পরিশ্রম করেছেন তা প্রশংসনীয়। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ হোক কিংবা অন্য যে কোনো টুর্নামেন্টে, ভারতের হয়ে অপরাজিত ফিনিশারের ভূমিকায় নিজেকে বারবার প্রমাণ করেছেন রিঙ্কু। ইতিমধ্যে একাধিকবার নিজের ক্ষমতায় জিতিয়েছেন টিম ইন্ডিয়াকে। রিঙ্কু সিং এর উত্থানের পিছনে থাকা গল্প জানতে ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্যে উৎসাহের অভাব নেই। গল্পের অনেকটা ইতিমধ্যে জানা, অনেকটা এখনও অজানা। রিঙ্কু নিজেই জানিয়ে দিয়েছেন কোন ভারতীয় ক্রিকেটার তাঁকে এগিয়ে যেতে অনেক সাহায্য করেছেন এবং সেই ক্রিকেট তারকা তাঁর উত্থানের অন্যতম কারণ।

রিঙ্কু সিং এর আগে বলেছেন যে ভারতের প্রাক্তন ব্যাটসম্যান সুরেশ রায়না (Suresh Raina) তাঁর রোল মডেল। একই সঙ্গে তাঁর অনুপ্রেরণাও। বাঁ-হাতি এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য রায়নাকে ফলো করতাম এবং তার মতো ব্যাট করার চেষ্টা করতাম।’ এক সংবাদ মাধ্যম সাক্ষাৎকারে রিঙ্কু সিং বলেন, ‘আমি সুরেশ রায়না ভাইয়ার বড় ভক্ত এবং তাকে দেখে খেলার চেষ্টা করি। তিনি আমার জীবন এবং কেরিয়ারে একটি বড় ভূমিকা পালন করেছেন।’

   

‘সুরেশ রায়না আমাকে সব রকম ভাবে সাহায্য করেছেন। এমনকি উনি আমাকে ব্যাট, প্যাড এবং ক্রিকেট খেলার জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছু দিয়েছেন। তাঁকে কিছু না বলে, তাঁর কাছে থেকে কিছু না চেয়ে আমার জন্য সবকিছু পাঠাতেন। তিনিই আমার সবকিছু।’ রিঙ্কু আরও জানিয়েছেন, ‘যখন কোনো ব্যাপারে আমার সিদ্ধান্ত নিতে সমস্যা হয় আমি সরাসরি গঞ্জে ফোন করি। সুরেশ রায়না আমার কাছে একজন বড় ভাইয়ের চেয়েও বেশি কিছু। তিনি আমাকে বলেছিলেন কীভাবে চাপ সামলাতে হয়।’

রিঙ্কু সিংকে সুরেশ রায়না পরামর্শ দিয়েছেন, ‘ নিজেকে সময় দিন। ৪-৫টা বল আগে দেখে নিন, উইকেটে একটু থিতু হোন, তারপর হাত খুলুন। তাঁর পরামর্শগুলি আমাকে আইপিএলে (Indian Premier League) অনেক সাহায্য করেছিল এবং এখন ভারতের হয়ে খেলার সময় একই জিনিসগুলি আমাকে খুব সাহায্য করছে।’

rinku singh

রিঙ্কু সিং জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার পরেই যে খেলাটা খেলেছেন তাতে অনেকেই বিস্মিত। অনেকে আবার এটাও বলছেন যে রিঙ্কু সিংয়ের মতো ক্রিকেটারের থেকে এমনটাই আশা করা যায়। সব মিলিয়ে আসন্ন টি২০ বিশ্বকাপে তাঁকে খেলতে দেখা যাবে বলে আশা করা যায়। কেরিয়ারের সবথেকে বড় মঞ্চে নামার আগেও হয়তো নিজের আইডলের থেকে কিছু পরামর্শ নিতে চাইবেন রিঙ্কু।

সম্পর্কিত খবর