আজ ডার্বি, মোহনবাগানের বিরুদ্ধে বদলার ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের

আজকে ডার্বি। মুখোমুখি মোহনবাগান সুপার জায়ান্ট ও ইস্টবেঙ্গল। তবে এই ম্যাচ ছোটোদের, সিনিয়র দলের নয়। ছোটোদের খেলা হলেও এই ম্যাচ ডার্বি। কারণ, মুখোমুখি ভারতীয় ফুটবলের দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। আরএফডিএল টুর্নামেন্টে আজ মোহনবাগান বনাম ইস্টবেঙ্গল ম্যাচ। এই টুর্নামেন্টে আগে লজ্জার মুখে পড়েছে লাল হলুদ শিবির। বয়স ভাঁড়ানোর অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। ইস্টবেঙ্গল বেশি বয়সের ফুটবলার মাঠে নামিয়েছে এই অভিযোগ জানিয়েছিল মোহনবাগান। বাগানের পক্ষ থেকে অভিযোগ দায়ের করার পরেই নড়েচড়ে বসে ফেডারেশন। শুরু হয় তদন্ত।

ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কর্তারা প্রথম দিকে এই অভিযোগ মানতে চাননি। পরে তাঁরাই দোষী প্রমাণিত হয়েছে। এর আগের ডার্বি ম্যাচেই ১৯ বছরের চেয়ে বেশি বয়সের ফুটবলার মাঠে নামানো অভিযোগ তুলেছিল মোহনবাগান। অভিযোগ তোলার পর ইস্টবেঙ্গল দলে বদল লক্ষ্য করা গিয়েছিল। অভিযুক্ত একাধিক ফুটবলারকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল পরবর্তী ম্যাচের স্কোয়াড থেকে। তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি।

   

মোহনবাগান ও ইস্টবেঙ্গলের মধ্যে দ্বৈরথ সর্বজনবিদিত। মাঠের বাইরেও দুই দলের কর্তাদের মধ্যে মাঝে মধ্যে শব্দশেল দাগা হয় একে অপরের বিরুদ্ধে। তাই আজকের ছোটোদের ডার্বিতে রয়েছে আলাদা মাত্রা। বাগানের বিরুদ্ধে ম্যাচ জেতার ব্যাপার বদ্ধপরিকপর ইস্টবেঙ্গল। একই কথা মোহনবাগানের ক্ষেত্রেও। আজকের ম্যাচ থেকে পুরো পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছাড়তে চাইছে সবুজ মেরুন ব্রিগেড।

আরএফডিএল টুর্নামেন্টের আগের ম্যাচে লড়াকু মানসিকতা দেখিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। জমশেদপুর এফসির বিরুদ্ধে ম্যাচ শেষ হয়েছিল ৩-৩ গোলে। ০-২ গোলে পিছিয়ে থাকার পর ৩-৩। জমাশেদপুর ম্যাচের লড়াকু মানসিকতা ইস্টবেঙ্গলের পক্ষে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে আজকের বড় ম্যাচে।

মহনবাগানের বিরুদ্ধে জরুরি ম্যাচের আগে অনুশীলন জোরদার করেছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। প্রস্তুতির মুহূর্তের ছবি তুলে ধরা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল থেকে। বাগানের বিরুদ্ধে ভালো খেলার ব্যাপারে আসাবাদী ইস্টবেঙ্গলের জুনিয়র দলের কোচ বিনো জর্জ।

ছোটোবেলা থেকে খেলাধুলোর প্রতি ভালোবাসা। এখন পেশা। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে লিখছে বিগত কয়েক বছর ধরে।

সম্পর্কিত খবর