চিরশত্রু হয়েও ইষ্ট বেঙ্গলের সুপার কাপ জয়ের প্রার্থনা মোহনবাগানের! কারণ জেনে গর্ব করবেন

একই মরসুমে পরপর দু’বার বড় ম্যাচে পরাজয়। ভালো দল গঠন করার পরেও প্রত্যাশা মতো সাফল্য এখনও পায়নি মোহন বাগান সুপার জায়ান্ট (Mohun Bagan Super Giant)। কলিঙ্গ সুপার কাপে (Kalinga Super Cup) প্রতিদ্বন্দ্বী ইস্ট বেঙ্গলের (East Bengal Fc) কাছে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গিয়েছে বাগান। তবুও প্রতিবেশী ক্লাবের জন্য সাফল্য কামনা করছেন মোহনবাগান ক্লাবের সচিব দেবাশীষ দত্ত (Debasish Dutta)।

বড় মন্তব্য মোহন বাগানের

বাগান সচিব দেবাশীষ দত্তের মতে, “আমি চাই ইস্টবেঙ্গল সুপার কাপ চ্যাম্পিয়ন হোক। আর মহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব জিতুক আই লিগ। ভারতের সেরা চারটে টুর্নামেন্ট যদি ধরা হয়, তা হলে আমরা গত বছর আইএসএল জিতেছি, এ বার মরসুমের শুরুতেই ডুরান্ড কাপ জিতধি। হাতে বাকি রইল আরও তিনটে টুর্নামেন্ট। তার মধ্যে সুপার কাপ ও আই লিগ যদি ইস্টবেঙ্গল-মহমেডান জেতে, তা হলে বৃত্ত সম্পূর্ণ হবে। বাংলার ফুটবলের জন্য এটা অত্যন্ত ভালো ব্যাপার। আর সেই কারণেই বেশি করে চাই যাতে ইস্টবেঙ্গল এবারের সুপার কাপটা জিতুক।”

সুপার কাপের ফাইনালে ইষ্ট বেঙ্গল

   

সুপার কাপ জেতার অনেক কাছে অবশ্য ইস্ট বেঙ্গল পৌঁছে গিয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় সেমিফাইনালের হার্ডল পেরিয়ে ফাইনালে ইস্টবেঙ্গল। কলিঙ্গ সুপার কাপের সেমিফাইনালে জামশেদপুর এফসিকে হারিয়ে ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে ইস্টবেঙ্গল। ডাগ আউটে থাকা খালিদ জামিলের সমস্ত পরিকল্পনা ব্যর্থ হয়েছে লাল হলুদ কোচের সামনে। নবাগত বিদেশি ফুটবলার হিজাজি মাহেরের গোল পার্থক্য গড়ে দিয়েছে দুই দলের মধ্যে। জামশেদপুর ম্যাচে ফিরে আসার চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত তাদের প্রচেষ্টা সফল হয়নি।

জর্ডান থেকে নিয়ে আসা মাহেরের গোলে সেমিফাইনালে এগিয়ে গিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। কিছুটা জটলা থেকে হয়েছে এই গোল। সিলভার নেওয়া কর্ণার কোনো রকমে ক্লিয়ার করার চেষ্টা করেছিল জামশেদপুর। বল নিজেদের বক্সের বাইরে পাঠাতে সক্ষম হলেও বিপদ পুরোপুরি কাটাতে পারেনি জামশেদপুর। বল ঘুরে ফিরে চলে যায় লাল হলুদ ফুটবলারদের পায়ে।

সিভেরিও কিছুটা দূরে থেকে বল পাঠিয়ে দিয়েছিলেন আক্রমণ গড়ার লক্ষ্যে। ততক্ষণে পিছন থেকে উঠে এসেছিলেন হুজাজি মাহের। ডান পায়ে ট্যাপ করে বল জালে পাঠাতে এবারেও তিনি ভুল করেননি। হিজাজি এর আগেও রক্ষণ সামলানোর পাশাপাশি গোল করে জিতিয়েছেন লাল হলুদ ব্রিগেডকে।

সম্পর্কিত খবর