পানীয়র বদলে অ্যাসিড দিয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা? মায়াঙ্কের সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনার পর্দাফাঁস

ভারতের (India) ওপেনার ও কর্ণাটকের অধিনায়ক মায়াঙ্ক আগরওয়ালকে (Mayank Agarwal) ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সুরাট যাওয়ার পথে অসুস্থ হয়ে পড়েন মায়াঙ্ক। মুখ এবং গলায় জ্বালা অনুভব করেছিলেন। এরপর তাঁকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। গভীর রাতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে তাঁর অবস্থা এখন ভালো এবং তিনি শঙ্কামুক্ত। আশা করা হচ্ছে, খুব তাড়াতাড়ি তিনি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাবেন।

হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন মায়াঙ্ক। ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছেন তিনি। ইন্ডিগোর বিমানে পানীয়কে জল ভেবে ভুল করেছিলেন মায়াঙ্ক। বিমানে তাঁর আসনে বসানো ছিল সেটি। সেটা পান করার পরেই নাকি অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। মায়াঙ্ক তাঁর ম্যানেজারের মাধ্যমে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পশ্চিম ত্রিপুরার পুলিশ সুপার কিরণ কুমার। মায়াঙ্কের ম্যানেজার নিউ ক্যাপিটাল কমপ্লেক্স থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

   

ওই শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘মায়াঙ্ক এর ম্যানেজার বলেছেন, তিনি যখন বিমানে বসেছিলেন তখন তাঁর সামনে একটি থলি ছিল। তিনি খুব বেশি পান করেননি। তবে সামান্য পানীয় পান করেছিলেন। এরপরেই তাঁর মুখ জ্বলতে শুরু করেছিল। তিনি কথা বলতে অক্ষম হওয়ায় তাঁকে আইএলএস হাসপাতালে আনা হয়। তবে মুখে ফোলা ও আলসার ছিল। বর্তমানে অবস্থা স্থিতিশীল। ”

ঘটনার দিন সন্ধ্যায় ক্রিকেটার মায়াঙ্ক আগরওয়ালকে আগরতলার এমবিবি বিমানবন্দর থেকে আগরতলার আইএলএস হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। তিনি মুখে কিছুটা জ্বালা এবং ঠোঁটে ফোলাভাব অনুভব করছিলেন। জরুরি প্রয়োজনে হাসপাতালের পরামর্শকদের দ্বারা মূল্যায়নের পরে তাঁকে ভর্তি করা হয়েছিল। বর্তমানে মেডিক্যালি স্থিতিশীল এবং সর্বক্ষণ চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

ত্রিপুরা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি বাসুদেব চক্রবর্তী বলেন, ‘আমার কাছে ফোন আসে যে মায়াঙ্ক আগরওয়ালকে জরুরি অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মায়াঙ্ক একটি বোতল থেকে জল ভেবে কিছুটা তরল পান করেছিলেন। এরপর থেকেই সমস্যা দেখা দেয়। হাসপাতালে পৌঁছে আমরা দেখি ওঁর মুখ ফুলে গেছে এবং কথা বলতে পারছেন না।’

সম্পর্কিত খবর