নজরে T20 বিশ্বকাপ! রিটায়ারমেন্ট থেকে ৩৫ বছর বয়সী প্লেয়ারকে ফিরিয়ে আনছে পাকিস্তান

বিশ্বকাপ খেলা যে কোনও ক্রিকেটারের জন্য স্বপ্ন। বয়স যতই বাড়ুক না কেন, বিশ্বকাপ খেলার ইচ্ছা থেকে যায় চিরন্তন। তাই হয়তো অবসররের সিদ্ধান্ত সরিয়ে রেখে আবারও মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পাকিস্তানের এক তারকা ক্রিকেটার। ক্রিকেট মাঠ থেকে দূরে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। কিন্তু আবার সেই ক্রিকেটের টানেই ২২ গজে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। লক্ষ্য বিশ্বকাপ। আগামী দিনে শুরু হতে চলেছে T20 বিশ্বকাপ। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ শেষ হওয়ার পরেই শুরু হবে টি২০ বিশ্বকাপ। তার আগে থেকে নিজেদের দল সাজিয়ে নিতে শুরু করেছে বিশ্বকাপে অংশ নিতে চলা প্রতিটি দেশ।

পাকিস্তান ক্রিকেটের অবস্থা খুব একটা আশাব্যঞ্জক নয়। গত বছরে হওয়া ODI বিশ্বকাপের পর থেকে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের অন্দর উত্তাল হয়ে রয়েছে। কোচ, কোচিং স্টাফ, অধিনায়ক বদলে ফেলার পরেও কাজের কাজ হয়নি। এমন পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের প্রাক্তন একজন ক্রিকেটার অবসর ভেঙে মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সেই সঙ্গে বিশ্বকাপ খেলার ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

   

অবসর ভেঙে মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পাকিস্তানের প্রাক্তন তারকা ক্রিকেটার ইমাদ ওয়াসিম। পিসিবির সঙ্গে কথা বলেই ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই খেলোয়াড়। পাকিস্তান সুপার লিগের পর থেকে প্রধান নির্বাচক ওয়াহাব রিয়াজ ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক শাহিন শাহ আফ্রিদি ইমাদ ওয়াসিমকে অবসর ভাঙার ব্যাপারে অনুরোধ করেছেন বলে জানা গিয়েছিল। এরপরই আক্ষরিক অর্থেই নিজের সিদ্ধান্ত বদল করে শনিবারই ক্রিকেট দুনিয়ায় ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই ক্রিকেটার। গত বছরের নভেম্বরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা করেছিলেন ওয়াসিম। তবে এবার ২০২৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের হয়ে খেলতে দেখা যেতে পারে ক্রিকেটারদের।

“আমি খুব আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে পিসিবি কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেই অবসর থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ফিরতে চলেছি আমি। পিসিবি আমার ওপর আস্থা দেখিয়েছে, এজন্য আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি”, অবসর ভাঙার পর বলেছেন ইমাদ ওয়াসিম। ২০২৪ সালে পাকিস্তানকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতানোর মাধ্যমে পাকিস্তানকে গর্বিত করার জন্য আমি আমার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব। আমার কাছে পাকিস্তান সবার আগে। এই বক্তব্য দিয়ে লাখো ভক্তের মনও জয় করে নিয়েছেন এই খেলোয়াড়।

ছোটোবেলা থেকে খেলাধুলোর প্রতি ভালোবাসা। এখন পেশা। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে লিখছে বিগত কয়েক বছর ধরে।

সম্পর্কিত খবর