‘যে যা করার করুক, আমি যাবই’ রাম মন্দির নিয়ে বড় বয়ান হরভজনের! মুখ বন্ধ বিরোধীদের

অযোধ্যায় (Ayodhya) রাম মন্দির (Ram Mandir) নির্মাণের আর মাত্র দু’দিন বাকি। অতিথিদের থাকা-খাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা করা হয়েছে। অভিষেক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার বিষয়ে রাজনৈতিক দলগুলির বিভিন্ন মতামত রয়েছে। কিছু পক্ষ আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছে এবং কিছু পক্ষ তা প্রত্যাখ্যান করেছে। আম আদমি পার্টির (Aam Aadmi Party) রাজ্যসভার সাংসদ তথা প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার হরভজন সিং (Harbhajan Singh) বলেছেন, আমি অবশ্যই অযোধ্যা যাব।

সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় হরভজন সিং বলেন, ‘আমি চাই আরও বেশি সংখ্যক মানুষ রাম মন্দিরের অনুষ্ঠানে যোগ দিন। আমি অবশ্যই রাম মন্দিরের অভিষেক অনুষ্ঠানে যাব, কারণ আমি ধর্মে বিশ্বাস করি। কেউ যাক বা না যাক, ঈশ্বরের প্রতি আমার যে বিশ্বাস আছে, সেটার ওপর আস্থা রাখি। আমি অবশ্যই যাব। কোনও দল যাক বা না যাক, এটাই আমার অবস্থান।’

   

তিনি আরও বলেন, ‘কংগ্রেসকে যদি যেতে হয়, তাহলে যাবেন কি যাবেন না সেটা তাদের ব্যাপার। আমার যাওয়া নিয়ে যদি কারও সমস্যা হয়, তাহলে তাঁরা যা করতে চান সেটা তাঁরা করতেই পারেন। ধর্মের নামে রাজনীতি করা উচিত নয়, ভগবান রাম প্রত্যেকের এবং প্রত্যেকেরই তাঁর আশীর্বাদ নেওয়া উচিত। আজ আমি যদি এই পর্যায়ে থাকি, তবে তা ভগবানের কৃপায় রয়েছি। আমার পক্ষ থেকে আমি সমগ্র ভারতকে রামলালার অভিষেক অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।’

হরভজন সিং আরও বলেছিলেন যে ‘আমি চাই যে ২২ শে জানুয়ারি আরও বেশি সংখ্যক লোক যে কোনো মাধ্যমেই হোক এই অনুষ্ঠানে যোগ দিন। এটি একটি ঐতিহাসিক দিন। শ্রী রামের জন্মস্থানের জায়গায় মন্দির তৈরি হচ্ছে, এটা একটা বড় ব্যাপার। যখনই সুযোগ পাবো যাব। আমি প্রতিটি মন্দির, মসজিদ, গুরুদ্বারে প্রণাম জানাই।’

আপ সাংসদ বলেন, ‘এটা আমাদের জন্য সৌভাগ্যের বিষয় যে এই সময় মন্দির নির্মাণ করা হচ্ছে। এজন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে (Narendra Modi) অনেক অভিনন্দন, কারণ তাঁর নেতৃত্বেই এই কাজ হয়েছে। অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal) কখন এবং কীভাবে যাবেন সে সম্পর্কে আমার কোনও ধারণা নেই। আমন্ত্রণ পাই বা না পাই অবশ্যই যাব। রামলালার মূর্তিটি খুব সুন্দর হয়েছে। এবার সেই মূর্তি সামনে থেকে দেখার ইচ্ছা রয়েছে।’

সম্পর্কিত খবর