ISL-এ নিভল মশাল! ম্যাচ হেরে মুখ খুললেন ইস্টবেঙ্গলের কোচ, কাকে দায়ী করলেন কুয়াদ্রাত?

টমি জুরিখের জোড়া গোলে ইস্টবেঙ্গলকে (East Bengal FC) ৩-২ গোলে হারিয়ে ইন্ডিয়ান সুপার লিগের (Indian super league) ষষ্ঠ স্থানে জায়গা করেছে নর্থইস্ট ইউনাইটেড (NorthEast United FC)। নর্থইস্টের হয়ে জুরিখ (৪ ও ৬৬ মিনিট) ও নেস্টর আলবিয়াচ ১৫ মিনিট গোল করেন। ইস্টবেঙ্গলের হয়ে ৫৩ মিনিটে নন্দকুমার শেখর ও ৮২ মিনিটে ফেলিসিও ব্রাউন গোল করেন। এই জয়ের ফলে নর্থইস্ট ইউনাইটেড ১৪ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে বেঙ্গালুরু এফসি এবং জামশেদপুর এফসিকে টপকে ষষ্ঠ স্থানে উঠে এসেছে। ১২ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে নেমে গিয়েছে ইস্টবেঙ্গল।

সম্প্রতি ইস্টবেঙ্গলের ফর্ম নতুন করে আশার সঞ্চার করেছিল ক্লাব সমর্থকদের মনে। সদ্য জিতেছে সুপার কাপ। আশা করা হয়েছিল নর্থ ইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধেও ভালো কিছু করে দেখাবে দল। কিন্তু তেমনটা হয়নি। একাধিক ফুটবলারের অনুপস্থিতির মধ্যে ম্যাচ জিততে পারেনি ইস্টবেঙ্গল। ম্যাচের পর পরাজয়ের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন ইস্টবেঙ্গল কোচ কার্লেস কুয়াদ্রাত (Carles Cuadrat)।

   

কুয়াদ্রাত বলেছেন, “ম্যাচের শুরুতেই দুটো গোল হজম করেছিলাম আমরা। ফলে কাজ অনেক কঠিন হয়ে পড়েছিল। হাফটাইমে ছেলেদের বলেছিলাম দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই যদি আমরা একটা গোল দিতে পারি, তাহলেও এই ম্যাচ থেকে কিছু পয়েন্ট পাওয়া যেতে পারে।”

এরপর লাল হলুদ কোচ বলেছেন, “ওদের তৃতীয় গোলটাই এই ম্যাচের ফারাক গড়ে দিয়েছে… জানতাম, দ্বিতীয়ার্ধে গোল আসবেই এবং এক গোলে ওদের চাপে ফেলতে পারব। এছাড়া ফেলিসিওকে নিয়েও আলাদা পরিকল্পনা ছিল। বক্সে আরও বল বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছিলাম। কিন্তু নর্থ ইস্ট ইউনাইটেডের তিন নম্বর গোলটাই সব হিসেবে বদলে দিল।”

সেই সঙ্গে একাধিক ফুটবলার এদিনের ম্যাচে না থাকার কথাও তিনি বলেছেন। “কয়েকজন ফুটবলার চোটের কারণে বাইরে রয়েছে, আবার শৌভিক রয়েছে নির্বাসনে। এটা আমাদের সকলের কাছেই একটা শিক্ষা।”

সম্পর্কিত খবর