সুপার কাপ জিততেই বড় সুখবর ইষ্টবেঙ্গলের জন্য! লটারি লাগল লাল-হলুদ শিবিরের

রবিবার ক্লেটন সিলভার নির্ণায়ক গোলে ওড়িশা এফসিকে (Odisha FC) ৩-২ গোলে হারিয়ে সুপার কাপ (Super Cup) চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছে কলকাতার ঐতিহ্যবাহী ক্লাব ইস্টবেঙ্গল (East Bengal FC)। দুই দলই গোলের অনেক সুযোগ পেলেও নির্ধারিত সময়ে খেলা শেষ করা যায়নি। ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। সেখানেও প্রবল উত্তেজনা। ১১১ মিনিটে ইস্টবেঙ্গলের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন ব্রাজিলের ক্লেটন, যার পরেই বাঁধ ভাঙা উচ্ছ্বাস।

ক্লেটন ওড়িশা গোলরক্ষকের ভুলের সুযোগ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে বাঁ পায়ে শট নেন। তবে বাকি সময়ে ওড়িশা এফসি সমতা ফেরানোর চেষ্টা করলেও ইস্টবেঙ্গলের রক্ষণভাগ মজবুত থাকায় এবার আর ট্রফি হাতছাড়া হয়নি। এখানেই শেষ নয়। ট্রফি জেতার পর ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের জন্য রয়েছে আরও অনেক বড় খবর। কলিঙ্গ সুপার কাপের ফাইনাল ম্যাচে ইস্টবেঙ্গলের হয়ে ৫১ মিনিটে নন্দ কুমার শেখর ও ৬২ মিনিটে সাউল ক্রেসপো এবং ওড়িশার হয়ে ডিয়েগো মরিসিও ৩৯ ও আহমেদ জাহু ৯০+৯ মিনিটে গোল করেন।

   

ইস্টবেঙ্গলের বিজয়ীরা এখন এএফসি (Asian Football Confederation) ২০২৩-২৪ মরসুমের মর্যাদাপূর্ণ এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ২ এর প্রিলিমিনারি পর্বে খেলার জন্য মনোনীত হবে। সামনের মরসুম থেকে এএফসি কাপ আর খেলা হবে না। তার জায়গায় শুরু হতে চলেছে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ২। এশিয়ার সর্বোচ্চ পর্যায়ে থাকা দ্বিতীয় সারির ক্লাবগুলোকে নিয়ে আয়োজিত হবে এই টুর্নামেন্ট। পরের বছর থেকে ইন্ডিয়ান সুপার লিগ জিতলেও আগের মতো সুযোগ থাকবে না।

আইএসএল জয়ী চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার সুযোগ পাবে না আর। অবশ্য আইএসএল জিতলে সরাসরি গ্রুপ পর্বে যাওয়ার সুযোগ থাকবে। এই সমস্ত নিয়মের জন্য ইস্টবেঙ্গল এবার যোগ্যতা নির্ণায়ক পর্বে খেলতে নামবে। দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চল থেকে যোগ্যতা নির্ণয়কারী পর্বে দল নামানোর সুযোগ পেয়েছে ইস্টবেঙ্গল। জুলাই মাসে এশিয়ার সেরা কিছু দলের সঙ্গে খেলবে ইস্টবেঙ্গল। এশিয়ান টুর্নামেন্টে এবার সুযোগ পেয়েছিল মোহন বাগান সুপার জায়ান্ট। সেখানে ডুবেছিল পালতোলা নৌকা। ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের এবার নতুন পথ চলা।

সম্পর্কিত খবর