IPL-এ এই কাজ করলেই T20 বিশ্বকাপে সুযোগ! ঋষভ পন্থকে নিয়ে বড় তথ্য দিলেন জয় শাহ

ঋষভ পন্থকে নিয়ে গতি পাচ্ছে আলোচনার বেগ। সামনে ক্রিকেটের একের পর এক বড় টুর্নামেন্ট। রয়েছে টি২০ আন্তর্জাতিক বিশ্বকাপ। তারও আগে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের সতেরোতম আসর। ঋষভ খেলতে পারবেন কি না, খেললেও কোন প্রতিযোগিতায় খেলবেন এ ব্যাপারে ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্যে কৌতহল রয়েছে পুরো মাত্রায়। এ ব্যাপারে সম্প্রতি বড় আভাস দিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সচিব জয় শাহ।

২০২২ সালের ডিসেম্বরের গাড়ি দুর্ঘটনার পর থেকে এখনও প্রতিযোগিতা মূলক ম্যাচে নামতে পারনেননি ঋষভ পন্থ। হসাপাতালের বেড থেকে ২২ গজে ফেরার জন্য কম চেষ্টা করছেন না তিনি। প্রতি মুহুর্তে তাঁর ভক্তদের এখ আপডেট রাখছেন পন্থ। ক্র্যাচ হাতে প্রথম হাঁটা হোক কিংবা গাড়ি দুর্ঘটনার পর প্রথম অনুশীলন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ঋষভের ব্যাপারে আপডেট পাওয়া গিয়েছে প্রতিনিয়ত। আর ততই কৌতুহল বেড়েছে ভারতীয় ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্যে। আলোচ্য বর্ষে বাংলাদেশের বিপক্ষে ২-০ ব্যবধানে টেস্ট সিরিজ জিতেছিল ভারত। এই সিরিজে টিম ইন্ডিয়ার অংশ হয়েছিলেন ঋষভ পন্থ।

   

বাংলাদেশ সফর থেকে ফেরার পর ৩০ ডিসেম্বর সকালে পন্থের গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিল। দুর্ঘটনার তীব্রতা দেখে অনেকেই বলেছিলেন, বরাত জোরে রক্ষা পেয়েছেন তিনি। এই গাড়ি ঘটনার পর পন্থের হাঁটু ও গোড়ালির লিগামেন্ট ছিঁড়ে গিয়েছিল। এছাড়াও দেহের একাধিক জায়গায় আঘাতের কথা শোনা গিয়েছিল। এরপর করানো হয় অস্ত্রোপচার। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সব সময় তাঁর চিকিৎসার দিকে নজর রেখেছে। বোর্ডের পক্ষ থেকে আশ্বাস দিয়ে বলা হয়েছিল, পন্থের সুস্থতার জন্য প্রয়োজনীয় সব রকম সাহায্য করার জন্য প্রস্তুত বিসিসিআই।

এবার ঋষভ পন্থকে নিয়ে বড় আপডেট দিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সচিব জয় শাহ। শাহ সম্প্রতি জানিয়েছেন, পন্থ ইতিমধ্যে ব্যাট হাতে অনুশীলন করা শুরু করে দিয়েছেন। ব্যাটিং ভালই করছেন। সেই সঙ্গে উইকেটকিপিংটাও ভালই করছেন এখন। খুব তাড়াতাড়ি তাঁকে ফিট ঘোষণা করা হবে। জয় শাহ স্পষ্টই বলেছেন, ‘ঋষভ পন্থ শেষ পর্যন্ত সত্যি যদি টি২০ বিশ্বকাপে অংশ নিতে পারেন, তাহলে আমাদের জন্য সেটা সত্যি বড় ব্যাপারে হবে।’

জয় শাহ একই সঙ্গে জানিয়েছেন, ‘ঋষভ কিপিং করতে পারলে বিশ্বকাপ খেলতে পারবেন। এবার দেখা যাক আসন্ন আইপিএলে কেমন কি করতে পারেন।’ শাহের বক্তব্য থেকে একটা জিনিস বোঝা যাচ্ছে, উইকেটকিপার হিসেবে পন্থ কেমন খেলতে পারবেন সে দিকে বোর্ডের দৃষ্টি আরও বেশি করে রয়েছে।

ছোটোবেলা থেকে খেলাধুলোর প্রতি ভালোবাসা। এখন পেশা। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে লিখছে বিগত কয়েক বছর ধরে।

সম্পর্কিত খবর