অষ্টমীর বিকেলেই ঘটবে বড় পালাবদল, রুদ্রমূর্তি ধারণ করবে নিম্নচাপ! দক্ষিণবঙ্গের ৫ জেলায় দুর্যোগ

চলতি বছরে দুর্গাপুজো মানুষ একপ্রকার নির্ঝঞ্জাটেই কাটাচ্ছেন। অন্তত মনোরম আবহাওয়ায় কাটাচ্ছেন সকলে। নেই কোনওরকম ভ্যাপসা গরম। বরং মিঠে রোদ গায়ে মেখে আট থেকে আশি সকলেই পুজোর আনন্দ করতে রাস্তায় নেমে পড়েছেন।

রোদ থাকলেও তা গায়ে খুব একটা লাগছে না। এদিকে রাজ্যের আবহাওয়ার ধীরে ধীরে বদল ঘটছে। হাওয়া যেন জানান দিচ্ছে শীত আসন্ন। আজ দুর্গাপুজোর মহাষ্টমী। একে তো রবিবার তার ওপর ছুটির দিন। প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে জোরকদমে চলছে পুষ্পাঞ্জলি। কোথাও কোথাও চলছে কুমারি পুজো।  সবকিছু মিলিয়ে এবারের পুজোও এক কথায় একদম জমজমাট। যদিও বেশিক্ষন কিন্তু আবার সকলের এই আনন্দ থাকবে না। কারণ আজ অষ্টমীর দিন থেকেই আমূল বদল ঘটতে শুরু করবে আবহাওয়ার।

   

ঠাণ্ডার মাঝেই দাপট দেখাবে বৃষ্টি। কারণ বঙ্গোপসাগরে এক গভীর নিম্নচাপের সৃষ্টি হয়েছে। আর এই নিম্নচাপের দাপটেই আজ দুপুর বা বিকেলের পর থেকেই বদল ঘটতে শুরু করবে আবহাওয়ার। আপনিও যদি দুপুরের পরে বা বিকেলের দিকে ঠাকুর পরিদর্শন করতে বেরনোর প্ল্যান করে থাকেন তাহলে অবশ্যই সঙ্গে ছাতা রাখবেন, নইলে কিন্তু পুজোর সাজ ঘেঁটে যেতে পারে কিন্তু। আজ রবিবার, অষ্টমীর দিন সকাল থেকেই দিকে দিকে ঠাকুর দেখার ধুম শুরু হয়েছে। তবে নবমী থেকে বাঙালির পুজো যাপনে ছেদ পড়তে পারে। বৃষ্টিতে ভিজতে পারে  রাজ্যের  একের পর এক জেলা।

weather low pressure wb

বৃষ্টির হাত থেকে রেহাই পাবে না কলকাতাও। আলিপুর আবহাওয়া অফিসের বিজ্ঞানীদের মতে, আজ রবিবার বিকাল নাগাদ একটি নিম্নচাপ আরও ঘনীভূত হবে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় সেই নিম্নচাপ আরও শক্তি বাড়িয়ে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, আজ অষ্টমীর দিন বৃষ্টিতে ভিজতে চলেছে দক্ষিণবঙ্গ (South Bengal)। কলকাতা সহ দুই ২৪ পরগণা, পূর্ব মেদিনীপুর এবং হাওড়ায় আজ পুজোর আনন্দ মাটি হতে পারে।

সম্পর্কিত খবর