ভারতের এই ৬টি রেল স্টেশনে যেতে ভয় পান যাত্রীরা! চার নম্বরটা সবথেকে বিস্ময়কর

ছোট থেকে ভূতুরে গল্প পড়ে এবং ভূতের সিনেমা দেখে ফাঁকা বাড়ি বা শ্মশান অথবা শান্ত হোটেলে যেতে আমাদের বেশ একটু গা ছমছম করতে থাকে। ছোটবেলায় দেখা সমস্ত ভূতুরে দৃশ্যের কথা মাথায় আসে একা থাকলেই। কিন্তু জানেন কি এমন কিছু রেলস্টেশনও (Railway Station) রয়েছে যেখানে গেলে গা ছমছম করে উঠে।

রেলস্টেশন নিয়েও অবশ্য কম ভূতুরে সিনেমা নেই। একের পর এক সিনেমায় রেল স্টেশনে ভূতের দৃশ্য দেখানো হয়েছে। কিন্তু জানেন কি ভারতের এই ৬ স্টেশনে ‘তেনাদের’ দেখা মিলেছে। যদিও এই নিয়ে তর্ক বিতর্ক অনেক রয়েছে, কিন্তু অনেক সাহসী যাত্রীরাও এইসব স্টেশনে যেতে ভয় পান।

চলুন দেখে নেওয়া যাক কোন কোন স্টেশনে তেনাদের দেখতে পেয়েছেন যাত্রীরা

১) প্রথমেই নাম আসে তিলোত্তমা কলকাতা শহরের রবীন্দ্র সরোবর রেলস্টেশন। ভূতুরে স্টেসন হিসেবে কুখ্যাত হয়ে রয়েছে এটি। রাত্রিতে অনেকেই তাদের দেখাও পেয়েছেন।

২) দ্বিতীয় ভূতুরে জায়গা হলো হিমাচল প্রদেশের বারোগ রেলস্টেশন। জায়গাটি সারাদেশের মানুষের মধ্যেই ভূতুরে স্থান হিসেবে পরিচিত। রেল স্টেশনের পাশেই এখানে রয়েছে ৩৩ নম্বর টানেল। সেখানে প্রচুর অস্বাভাবিক কিছু যা সাধারণ কিছুর দ্বারা ব্যাখ্যা করা যায়না সেরকম দৃশ্যে চোখে পড়েছে।

৩) ভারতের দক্ষিণাংশে অবস্থিত চিত্তুর রেলস্টেশন নিয়েও এরকমই কিছু ভয়ংকর লোমহর্ষক গল্প চালু আছে। যাত্রীরা এই স্টেশনে একা যেতে ভয় পান আজও। লোকমুখে শোনা যায় যে, এই স্টেশনে নাকি এক CRPF জওয়ানকে RPF এবং TTE রা এত মেরেছিলেন যে তিনি মারা যান। আর তারপর থেকেই স্টেশনে অশুভ আত্মার দেখা মিলেছে।

৪) পরবর্তী ভূতুরে রেলস্টেশন ভারতের স্বাধীনতার ইতিহাসের সাথে জড়িত। একটা সময় উত্তর প্রদেশের নৈনি স্টেশনের কাছে থাকা নৈনি জেলে বর্বর ব্রিটিশরা স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নির্যাতন করত। আর তারপর কেটে গিয়েছে কয়েক যুগ, সেই বিপ্লবীদের অতৃপ্ত আত্মার এখনো সেখানে নাকি দেখা যায়।

naini jn

রেল স্টেশন ছাড়াও অত্যাধুনিক মেট্রো স্টেশনেও তেনাদের অবাধ বিচরণ। এই যেমন দিল্লির দ্বারকার সেক্টর ৯। এই মেট্রো স্টেশনে রাত্রিবেলা পারতপক্ষে কেও একা যেতে চাননা। একই কথা প্রযোজ্য দিল্লির এম জি রোড মেট্রো স্টেশনের ক্ষেত্রে। অনেকেই সন্ধের পর দিল্লির এই দুই মেট্রো স্টেশন এড়িয়ে চলেন।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button