আয়ের থেকে ব্যয় বেশি! পদ্মা সেতুর পিছনে এখনো ঢালতে হচ্ছে টাকা! খরচ শুনে মাথা ঘুরে যাবে

অনেক ঢাকঢোল বাজিয়ে উদ্বোধন করা হয় পদ্মাসেতুর (Padma Multipurpose Bridge)। সেদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৫ জুন উদ্বোধন করার পর ২৬ তারিখ থেকেই যান চলাচল শুরু হয়েছে। বাংলাভাষী দেশটির মানুষের মধ্যে এই সেতু নিয়ে অস্বাভাবিক রকমের উন্মাদনা দেখা গিয়েছে। আর সেইসাথে রেকর্ড হারে টোল আদায় চলছে।

জানা যাচ্ছে পদ্মা সেতুতে প্রতিদিন প্রায় ২ কোটি টাকার টোল ট্যাক্স আদায় হচ্ছে। যদিও সেতুর কাজ এখনো শেষ হয়নি। কাজ এখনো চলছে। এবং লেটেস্ট রিপোর্ট অনুযায়ী পদ্মা সেতুর পিছনে বাংলাদেশের ব্যয় বাড়তে চলেছে ২.৫ হাজার কোটি টাকা!download

বর্তমানে পদ্মা সেতু প্রকল্পে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি টাকা। কিন্তু এই টাকা পর্যাপ্ত নয়। বর্তমানে আনুমানিক মোট খরচ হবে ৩২,৬৩৮ কোটি টাকা। ২০০৭ সালে ১০ হাজার কোটি টাকার বাজেটে এই সেতু নির্মাণ শুরু হয়, কিন্তু পরবর্তী সময়ে নকশায় কিছু সংশোধনের জন্য ব্যয় বেড়েছে। সেইসাথে বর্তমানে ডলার যেভাবে অন্যান্য কারেন্সি গুলোকে পর্যদুস্ত করেছে তাতে খরচ বেড়েই চলেছে।

আগামী বছর জুন মাসের মধ্যে পদ্মা সেতুর সমস্ত কাজ সম্পূর্ন হবে। এই সময়ের মধ্যে সমস্ত ঠিকা শ্রমিকদের কাজ বকেয়া টাকা মেটানো হচ্ছে। আসলে নদীবাঁধ মেরামতের কাজ সম্পন্ন না হওয়ায় ১ বছর অতিরিক্ত লাগবে। আসলে সরকার কর বাড়ানোর ফলে খরচের পরিমাণ অনেকটা বেড়ে গিয়েছে। এক্ষেত্রে ৬৮৭ কোটি টাকা গিয়েছে সরকারের ঘরে।prothomalo bangla 2022 06 88ab701e 5094 45e6 af7e 91fde876dd61 7fecd220 f299 4a38 ae53 21b5c983be97

তাছাড়া বিদেশি পণ্যের কারণে খরচ বেড়েছে। কারণ প্রকল্পে ব্যবহৃত সমস্ত সরঞ্জাম চিন থেকে এসেছে। এবার সেই টাকা মেটানোর জন্য ডলারে শোধ করতে হয়েছে। ডলারের সাপেক্ষে টাকার দাম পড়ে যাওয়ায় খরচ অনেকটা বেড়ে গিয়েছে। তাছাড়া সময়মতো নির্মাণকার্য সম্পূর্ন না হওয়ায় ৬০০ কোটি টাকা খরচ বেড়েছে।

পদ্মা সেতুর ওপর বিদ্যুৎ লাইন বসানোর জন্য অতিরিক্ত ৪০০ কোটি টাকা পড়েছে বলে খবর। টোল প্লাজা, ট্র্যাকের জন্য আলাদা লেন তৈরি করতে গিয়ে অতিরিক্ত ২১৫ কোটি টাকা খরচ হয়েছে। তাছাড়া নদীবাঁধ মেরামত করতে ১৩০ কোটি টাকা খরচ হয়েছে। সাথে মাওয়া প্রান্তের ফেরিঘাট নির্মাণে ৩৫০ কোটি টাকা অতিরিক্ত খরচ করতে হয়েছে।

image 47793 1656164422

৬.১৫ কিমি লম্বা রয়েছে পদ্মা সেতু। মাটির ওপর অংশ ধরলে সেতু দৈর্ঘ্য হয় ৯ কিমি। সেতু নির্মাণ করে চিনের মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি। যদিও পদ্মা সেতুতে খরচ নিয়ে সমালোচনায় সরব হন বিরোধীরা। নয়া খরচের হিসেব সামনে আসতে সেই নিয়ে রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়েছে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button