বদলে গেল হাওড়া থেকে বন্দে ভারত ছাড়ার সময়! টাইম পাল্টাল আরও কয়টি এক্সপ্রেসেরও

দেশজুড়ে চলছে বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের মতো সেমি হাইস্পিড এবং প্রিমিয়াম ট্রেন। যত সময় এগোচ্ছে ততই এই ট্রেনের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যারা এই ট্রেনে উঠেছেন, তাঁরা জানেন এই ট্রেনে ওঠা এবং এর সঙ্গে ভ্রমণ করার অনুভূতিটা কেমন। এখন অনেকেই চাইছেন জীবনে একবার হলেও এই ট্রেনে উঠতে।

দেশের বিভিন্ন রুটে ছুটছে এই বন্দে ভারত এক্সপ্রেস ট্রেন। উত্তর থেকে দক্ষিণ, পূর্ব থেকে পশ্চিম, সর্বত্র চলছে এই ট্রেন। সবথেকে বড় কথা, বাংলাতেও বহু রুটে চলছে এই ট্রেন। আপনিও কি পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা? আপনিও কি কোথাও ভ্রমণের জন্য বন্দে ভারত এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট কেটেছেন? তাহলে আপনার জন্য রইল জরুরি খবর।

   

বেশ কিছু ট্রেনের সময়সীমা বদলে দেওয়া হল। যার মধ্যে রয়েছে বন্দে ভারত এক্সপ্রেসের মতো ট্রেনও। বড় তথ্য দিয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব রেল। রেলের তরফে জানানো হয়েছে, রাঁচি-বারাণসী-রাঁচি বন্দে ভারত এক্সপ্রেস চালু করার জন্য রাঁচি-হাওড়া বন্দে ভারত এক্সপ্রেস, রাঁচি-হাওড়া ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস, হাওড়া-চক্রধরপুর এক্সপ্রেস-সহ ১০টি এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি পালটে যাচ্ছে। কয়েকটি ট্রেনের টাইমটেবিল পালটে যাচ্ছে আজ সোমবার থেকেই। দেখে নিন তালিকা…

বদলে গেল হাওড়া থেকে বন্দে ভারত ছাড়ার সময়

রাঁচি থেকে ট্রেন নম্বর ২০৮৯৮ বন্দে ভারত এক্সপ্রেস আগে ৫:১৫ নাগাদ ছাড়ত, কিন্তু এখন সেটি ছাড়বে সকাল ৬টা নাগাদ। এরপর ট্রেনটি মুরিতে ৬:১৫-র পরিবর্তে সকাল ৬ টা ৫৩ মিনিটে পৌঁছাবে। দু’মিনিটের স্টপেজ দেওয়া হবে। এদিকে কোটশিলাইয় এই বন্দে ভারত ট্রেনটি ৬:৩৪-এর পরিবর্তে সকাল ৭ টা ১৯ মিনিটে কোটশিলায় পৌঁছাবে। এরপর সেটি সকাল ৭ টা ২০ মিনিটে ছেড়ে দেবে। এবার আসা যাক পুরুলিয়ার কথায়। ট্রেনটি সকাল ৭ টা ৫৩ মিনিটে পৌঁছাবে পুরুলিয়া স্টেশনে। দু’মিনিট দাঁড়াবে। সকাল ৭ টা ৫৫ মিনিটে পুরুলিয়া ছেড়ে বেরিয়ে যাবে। অন্যদিকে বন্দে ভারত ট্রেনটি চাণ্ডিল পৌঁছাবে সকাল ৮ টা ৩৯ মিনিটে। সেখানে এক মিনিটের স্টপেজ দেওয়া হবে। আগে ট্রেনটি চাণ্ডিলে পৌঁছাতো সকাল ৭ টা ৫০ মিনিটে।

টাটানগরের কথা বললে, ট্রেনটি সকাল ৯ টা ২৩ মিনিট টাটানগরে পৌঁছাবে। পাঁচ মিনিট দাঁড়াবে। সকাল ৯ টা ২৮ মিনিটে টাটানগর থেকে ছেড়ে দেবে। এরপর খড়্গপুরে সকাল ১১ টা ১৩ মিনিটে খড়্গপুর জংশনে পৌঁছাবে রাঁচি-হাওড়া বন্দে ভারত এক্সপ্রেস। দু’মিনিট দাঁড়াবে। এরপর শেষমেশ ট্রেনটি হাওড়ায় ঢুকবে দুপুর ১ টা বাজতে ১০ মিনিটে। আগে এই ট্রেনটি বেলা ১২ টা ২০ মিনিটে পৌঁছে যেত।

এবার আসা যাক ট্রেন নম্বর ১৮৬২৮ রাঁচি-হাওড়া ইন্টারসিটি এক্সপ্রেসের নয়া সময়সূচি সম্পর্কে। এই ট্রেনটি আগামী ৩১ মার্চ থেকে রাঁচি স্টেশন থেকে ভোর ৫ টা ৩০ মিনিটের পরিবর্তে ভোর ৫ টা ২০ মিনিটে রাঁচি থেকে ছাড়বে। অন্যদিকে মুরি থেকে সকাল ৬ টা ২০ মিনিটে মুরিতে পৌঁছে যাবে। আগে সকাল ৬ টা ৩০ মিনিটে ঢুকত। ঝালিদায় সকাল ৬ টা ৩৯ মিনিটে পৌঁছাবে। এক মিনিট দাঁড়াবে। এবার আসা যাক বোকারো স্টিল সিটির ব্যাপারে। এটি সকাল ৭ টা ৩৫ মিনিটে পৌঁছাবে। পাঁচ মিনিট স্টপেজ দেবে।

হাওড়ার বহু ট্রেনের সময়সূচীতে আসল বদল

এবার আসা যাক ট্রেন নম্বর ১২৮৩৩ আমদাবাদ-হাওড়া এক্সপ্রেসের নতুন সময়সূচি সম্পর্কে। ট্রেনটি টাটানগর থেকে সকাল ৯ টা ২৮ মিনিটে পৌঁছাবে। আগে এটি সকাল ৯ টা ২৩ মিনিটে পৌঁছাতো। যদিও খড়্গপুর ও সাঁতরাগাছিতে পৌঁছানোর সময় পালটায়নি। তবে হাওড়ায় কিছুটা ঢুকবে। দুপুর ২ টো ১০ মিনিটে হাওড়ায় পৌঁছাবে। এছাড়া আমুল বদলে দেওয়া হয়েছে ট্রেন নম্বর ১৮০১১ হাওড়া-চক্রধরপুর এক্সপ্রেসের সময়সূচি। রেলের তরফে জানানো হয়েছে, এই ট্রেনটি নির্ধারিত সময়েই হাওড়া থেকে ছাড়বে। তবে এটি দেরিতে চক্রধরপুরে পৌঁছাবে। সকাল ৯ টা ৫৫ মিনিটের পরিবর্তে সকাল ১০ টা ১৫ মিনিটে চক্রধরপুরে ঢুকবে ট্রেনটি।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর