ঝড়ের বেগে ছুটবে ট্রেন, উত্তরবঙ্গের দূরত্ব কমবে ৩ ঘণ্টা! এই দিন চালু হচ্ছে নশিপুর রেল ব্রিজ

চালু হওয়ার মুখে বাংলার (West Bengal) এক দীর্ঘ প্রতীক্ষিত রেল রুট (Rail Route)। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামীকাল শনিবারই খুলে যেতে পারে নশিপুর রেল ব্রিজ (Nashipur Rail Bridge)। এই ব্রিজ ও রেল রুটের কারণে উত্তরবঙ্গ (North Bengal) যাওয়া এখন আরও জলভাত হয়ে যাবে বলে মনে করছেন রেল কর্তারা। শুধু উত্তরবঙ্গ বললে ভুল হবে, দেশের আরও বহু জায়গা সহজ হয়ে যাবে। সম্প্রতি শিয়ালদহ (Sealdah) ডিভিশনের ডিআরএম রেল অফিসার পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান অধীর চৌধুরীকে সঙ্গে নিয়ে স্টেশন পরিদর্শনে যান।

বহরমপুর, বেলডাঙা, কাশিমবাজার প্রভৃতি স্টেশনের পরিকাঠামো উন্নয়নের কাজ নিয়ে সরেজমিন পরিদর্শন করেন। এদিন আজিমগঞ্জ নসিপুর রেলসেতুর কাজ দেখতে এগিয়ে আসেন আশেপাশের লোকজনও। ইতিমধ্যে সবুজ সঙ্কেত মিলেছে। লোকসভা ভোটের আগে আজ শুক্রবার বাংলায় পা রাখতে চলেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এরপর শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেই বহুপ্রতীক্ষিত নশিপুর রেলসেতুর উদ্বোধন করতে চলেছেন।

   

এই প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তরফে জানানো হয়েছে, শনিবার সকালে নদিয়ার কৃষ্ণনগর থেকে নবনির্মিত আজিমগঞ্জ-মুর্শিদাবাদ লাইনের উদ্বোধন করবেন মোদী। যে লাইনের মধ্যেই পড়ছে নশিপুর রেলসেতু। আর ওই সেতু দিয়ে ট্রেন চলাচল শুরু হলে হাওড়া এবং শিয়ালদহ থেকে উত্তরবঙ্গে যেতে আরও কম সময় লাগবে। দিল্লি-সহ উত্তর ভারতের বিভিন্ন জায়গায় পৌঁছাতে পারবেন মুর্শিদাবাদের মানুষজন।

আপনি জানলে অবাক হবেন, আজিমগঞ্জ-মুর্শিদাবাদ লাইনে ট্রায়াল রানও হয়। ১৪ কোচের প্যাসেঞ্জার ট্রেন নিয়ে সেই ট্রায়াল চালায় রেল। নশিপুর সেতুও দিয়ে ছুটে যায় সেই ট্রেন। পূর্ব রেল (Eastern railway zone) সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার ট্রায়াল রানের সময় ঘণ্টায় ১১০ কিলোমিটার গতিবেগ ছুঁয়ে ফেলে। ভাগীরথী নদীর ওপরে তৈরি হওয়া নসিপুর রেল সেতু দিয়ে ছুটবে দূরপাল্লার ট্রেন। জোরকদমে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। এই রেল সেতুর দৈর্ঘ্য ৩১৩ মিটার। মুর্শিদাবাদ এবং আজিমগঞ্জ জংশনের সংযোগস্থল হিসেবে গড়ে উঠেছে এই রেল সেতুটি।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর