এবার অর্ধেক খরচে হবে ভ্রমণ! ট্রেনের টিকিটের দাম হ্রাস করল রেল, এই দিন থেকে হবে কার্যকর

লোকসভা নির্বাচনের আগে বড় চমল দিল রেল (Indian Railways)। আপনিও কি আগামী দিনে ট্রেনে ভ্রমণ করার পরিকল্পনা করছেন? তাহলে তো আপনার জন্য রইল একদম সোনায় সোহাগা খবর। এবার এক ধাক্কায় প্যাসেঞ্জার ট্রেনের (Passenger Train) টিকিটের (Ticket) দাম ব্যাপকভাবে কমানোর কথা ঘোষণা করেছে ভারতীয় রেল। এটি টিকিটের দামকে প্রাক-মহামারী স্তরে ফিরিয়ে এনেছে।

এই পদক্ষেপের লক্ষ্য প্রতিদিনের যাত্রীদের উপর আর্থিক বোঝা হ্রাস করা। জানা যাচ্ছে, এবার ট্রেনের টিকিটের দাম কমেছে প্রায় ৪০-৫০ শতাংশ। আগে প্যাসেঞ্জার ট্রেনে যাতায়াতের জন্য যাত্রীদের এক্সপ্রেসের মতো ভাড়া গুণতে হতো। কিন্তু এবার বড় স্বস্তি দেওয়া হল রেল যাত্রীদের। এদিকে রেলের এহেন সিদ্ধান্তের কারণে বাহবা দিচ্ছেন যাত্রীরা। ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে প্যাসেঞ্জার ট্রেনের দ্বিতীয় শ্রেণির ভাড়া স্বাভাবিক করল ভারতীয় রেল। এই ট্রেনগুলি এখন ‘এক্সপ্রেস স্পেশাল’ বা ‘এমইএমইউ / ডেমু এক্সপ্রেস’ ট্রেন নামে পরিচিত।

   

কোভিড-১৯ মহামারীর সময় যাত্রীবাহী ট্রেন সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছিল। যখন তাদের পুনরায় চালু করা হয়, তখন টিকিটের ন্যূনতম মূল্য ১০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা করা হয়েছিল। এটি এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ ছিল। কিন্তু সম্প্রতি এই ঘোষণায় সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন রেলের আধিকারিকরা। এতে স্বস্তি ফিরেছে যাত্রীদের।

উল্লেখযোগ্যভাবে, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ ‘শূন্য’ থেকে শুরু হওয়া সমস্ত মেইনলাইন বৈদ্যুতিক একাধিক ইউনিট (এমইএমইউ) ট্রেন এবং ট্রেনের জন্য সাধারণ শ্রেণির ভাড়া প্রায় ৫০ শতাংশ কমিয়েছে। আনরিজার্ভড টিকিটিং সিস্টেম (ইউটিএস) অ্যাপে ভাড়ার কাঠামোতেও পরিবর্তন আনা হয়েছে। যে সমস্ত ট্রেন আগে প্যাসেঞ্জার ট্রেন হিসাবে শ্রেণিবদ্ধ করা হত এবং এখন সারা দেশে ‘এক্সপ্রেস স্পেশাল’ বা এমইএমইউ ট্রেন হিসাবে চলছে, সেগুলির ক্ষেত্রে ভাড়া হ্রাস প্রযোজ্য।

indian railways

এই বিষয়ে সেন্ট্রাল রেলওয়ের (Central Railway zone) প্যাসেঞ্জার অ্যাডভাইজরি কমিটির সদস্য শিবনাথ বিজানি জানিয়েছেন, অনেক গন্তব্যের টিকিটের দাম আগের হারের থেকে অর্ধেক করা হয়েছে। এতে যাত্রীদের জন্য অনেক স্বস্তি এনে দিয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে পরিবর্তিত ভাড়া কার্যকর হয়েছে।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর