বেজিং কিলার মিসাইলের উৎক্ষেপণ করবে ভারত? শুনেই আতঙ্কে চিন! খবর রাখছে চুপিচুপি

ভালো কথায় বোঝার দেশ নয় চিন। ক্রমাগত নিজেদের ঘরে ছেড়ে অন্যের ঘরে সিঁদ কাটার চেষ্টায় রয়েছে শি জিন পিং-এর দেশ। ভারত সর্বদা শান্তি বজায় রাখার ব্যাপারে বিশ্বাসী। সমস্যা হলে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে জট ছাড়ানোর পন্থায় বিশ্বাসী দিল্লি। কিন্তু সবাই তো সহজ কথা বোঝেন না। তাই বিকল্প ভাবনাও ভেবে রাখতে হয়।

ভারত শান্তি প্রিয় দেশ হলেও নিজেদের আত্মরক্ষা করার কৌশল জানা আছে খুব ভালো করে। কেন্দ্র সরকারে ভারতীয় জনতা পার্টি আসার পর থেকে ভারতের সামরিক ক্ষেত্রে প্রভুত উন্নতি হয়েছে। দেশীয় প্রযুক্তি হোক কিংবা বিদেশি প্রযুক্তি, দেশের সেনাবাহিনীকে ঢেলে সাজাচ্ছে ভারত সরকার। সেনাবাহিনীকে উন্নত করার লক্ষ্যে আরও একধাপ এগিয়ে যেতে চলেছে ভারত। নতুন একটি মিশাল পরীক্ষা করার পথে রয়েছে দেশ। নতুন এই মিশালটির পাল্লা আনুমানিক ৪০০০ কিলোমিটার।

   

মিশাইলটির আনুষ্ঠানিক নাম এখনও ঘোষণা না করা হলেও, অনেকে এটিকে ডাকছে ‘বেজিং কিলার’ নামে। বেজিং হল চিনের রাজধানী। যদিও এই নাম ভারতীয় সেনাবাহিনী কিংবা ভারত সরকারের দেওয়া নয়। আসলে ইদানিংকালে আগ্রাসী লাল সরকার শাসিত দেশটির কার্যকলাপ সম্পর্কে ভারতিবাসী যথেষ্ট ওয়াকিবহাল। ফলত চিনের প্রতি সকলের মনেই কম বেশি অসন্তোষ রয়েছে। বঙ্গোপসাগরে আগামী ৩ ও ৪ এপ্রিল সেনবাহিনীর বিশেষ কর্মসূচি রয়েছে বলে বিভিন্ন রিপোর্টে দাবি করা হচ্ছে। ১ হাজার ৬৮০ কিলোমিটার এলাকা নো ফ্লাইং জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। অর্থাৎ এই দু’টো দিন ১ হাজার ৬৮০ কিলোমিটার এলাকায় আকাশ পথে কোনও যান চলাচলাচলের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

কেন? মনে করা হচ্ছে, এই সময়কালে নতুন মিশাইটি পরীক্ষা করে দেখে নিতে পারে ভারত। মিশাইলটির রেঞ্জ আনুমানিক ৪ হাজার কিলোমিটার। এই ঘোষণার পর আরও একটি বিষয় নজরে এসেছে। সতর্কবার্তা ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই ভারত মহাসাগরের দিকে ধেয়ে আসতে দেখা গিয়েছে চীনের গুপ্তচর জাহাজ ইউয়ান ওয়াং ০৩। জাহাজটি শিগগিরই মালাক্কা প্রণালী অতিক্রম করে বঙ্গোপসাগরে প্রবেশ করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

জাহাজটি মালদ্বীপকে তাদের ঘাঁটি বানিয়ে আশপাশের এলাকায় গুপ্তচরবৃত্তি করছে বলে অভিযোগ। চিন এই শ্রেণির ৯টি জাহাজ নির্মাণ করেছে। প্রায় ১০০ মিটার লম্বা জাহাজটি ২০১৬ সালে স্টেট ওশেনিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বহরে যুক্ত করা হয়েছিল।

ছোটোবেলা থেকে খেলাধুলোর প্রতি ভালোবাসা। এখন পেশা। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে লিখছে বিগত কয়েক বছর ধরে।

সম্পর্কিত খবর