ভোটের আগেই বিনামূল্যে বাড়ি বাড়ি সোলার পাওয়ার! ঘোষণা কেন্দ্রের, এভাবে করুন আবেদন

বিদ্যুতের (Electricity) বাড়তি বিল আসা নিয়ে সকলেরই একপ্রকার নাভিশ্বাস উঠে যায়। বিদ্যুতের বিল (Electric Bill) দেখে বেশিরভাগ মানুষেরই চোখ রীতিমতো কপালে উঠে যায়। কেউ কেউ ভাবতে থাকেন যে সারা মাসে আদৌ তাঁরা এত বিদ্যুৎ খরচ করেছেন কিনা। একটা প্রশ্ন যেন থেকেই যায়। কিন্তু এবার এসব ঝঞ্ঝাট থেকে মুক্তি দিতে চলেছে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকার। হ্যাঁ ঠিক শুনেছেন।

আসলে মোদী সরকার এমন একটি যোজনা এনেছে যা সাধারণ মানুষের মাথা থেকে বোঝা কমাতে যথেষ্ট সাহায্য করবে। আর এই যোজনার লাভ তুলতে পারবেন দেশের কোটি কোটি সাধারণ জনতা। তবে এর জন্য আপনাকে ছোট্ট কিছু কাজ করতে হবে, তাহলেই হবে কেল্লাফতে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিনামূল্যে বিদ্যুতের ছাদে সৌর বিদ্যুৎ প্রকল্প (Solar Power) শুরু করেছেন। প্রধানমন্ত্রী মোদী এই প্রকল্পের নাম দিয়েছেন ‘প্রধানমন্ত্রী সূর্য ঘর মুক্ত বিদ্যুৎ প্রকল্প’। ৭৫,০০০ কোটি টাকারও বেশি কেন্দ্রীয় সরকারের এই প্রকল্পের লক্ষ্য প্রতি মাসে ৩০০ ইউনিট পর্যন্ত বিনামূল্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ করার পাশাপাশি ১ কোটি বাড়িতে আলোকিত করা।

   

প্রধানমন্ত্রী মোদীর মতে, এই প্রকল্পের আওতায় প্রকৃত ভর্তুকি সরাসরি জনগণের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে দেওয়া হবে। বড় অঙ্কের ব্যাঙ্ক ঋণও দেওয়া হবে। কেন্দ্রীয় সরকার নিশ্চিত করবে যে জনগণের উপর কোনও ব্যয়ের বোঝা নেই। সমস্ত অংশীদারদের একটি জাতীয় অনলাইন পোর্টালের সাথে সংযুক্ত করা হবে যা আরও সহজতর হবে। তৃণমূল স্তরে এই প্রকল্পটি জনপ্রিয় করার জন্য, শহুরে স্থানীয় সংস্থা এবং পঞ্চায়েতগুলিকে তাদের অধিক্ষেত্রগুলিতে ছাদে সৌর ব্যবস্থার প্রচারে উত্সাহিত করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী মোদী টুইট করেছেন যে এই প্রকল্পটি আরও বেশি আয়, কম বিদ্যুতের বিল এবং মানুষের কর্মসংস্থানের একটি বড় উপায় হিসাবে প্রমাণিত হবে। আমি সমস্ত আবাসিক ক্রেতাদের, বিশেষত যুবকদের pmsuryagarh.gov.in আবেদন করে প্রধানমন্ত্রী সূর্য ঘর মুক্ত বিদ্যুৎ প্রকল্পকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানাই। রুফটপ সোলার সিস্টেম স্থাপনের জন্য ভারত সরকারের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট https://solarrooftop.gov.in ভিজিট করেও আবেদন করতে পারেন। এই ওয়েবসাইট ভিজিট করার পর আপনাকে উপরে ক্লিক করতে হবে বাম পাশে রুফটপ সোলার আইকন প্রয়োগ করুন।

modi bijli

৬টি ধাপে এই স্কিমের সুবিধা নিতে আপনাকে তথ্য সরবরাহ করতে হবে। যেমন আপনি কোন রাজ্যের বাসিন্দা, আপনি কোন বিদ্যুৎ সংস্থার উপভোক্তা, গ্রাহক নম্বর কী, আধারের সঙ্গে যুক্ত মোবাইল নম্বর, ইমেল আইডি ইত্যাদি।

স্টেপ-১ এর পর স্টেপ-২ এ কনজিউমার নম্বর ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে লগইন করে রুফটপ সোলার প্যানেলের জন্য ফরম পূরণ করতে পারবেন। এতে আপনি ঘর ও নিজের সম্পর্কে সব তথ্য দিয়ে দেবেন। ধাপ-৩-এ, আপনি ডিসকম কোম্পানিগুলির অনুমোদন পাবেন এবং নিবন্ধিত বিক্রেতা সংস্থাগুলির দ্বারা আপনার সাথে যোগাযোগ করা হবে। ধাপ-5-এ, তুমি নেট মিটার ইনস্টল পাবেন এবং ডিসকম সংস্থা দ্বারা পরিদর্শন করার পরে, আপনার শংসাপত্রটি পোর্টালে জারি করা হবে। শেষ ধাপ-৬ এ আপনি কমিশনিং রিপোর্ট পাবেন। এর পরে, আপনাকে পোর্টালে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য এবং একটি বাতিল চেক জমা দিতে হবে। ৩০ দিনের মধ্যে, ভর্তুকির পরিমাণ আপনার অ্যাকাউন্টে আসবে।

যদিও এই পরিকল্পনাটি সমস্ত মানুষের জন্য নয়। এই স্কিম শুধুমাত্র দরিদ্র এবং বেকারদের জন্য। সরকারি কর্মীরা এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন না।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর