গাজার পর এবার এই দেশে হামলা করবে ইজরায়েল! নেতানিয়াহুর হুমকিতে তটস্থ আমেরিকা

গাজা (Gaza) ও ইজরায়েলের (Israel) মধ্যে এখনও অবধি রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে। দুই দেশের ভয়ানক সংঘর্ষের কারণে এখনও অবধি মৃত্যু হয়েছে কয়েক হাজার মানুষের। যদিও এই রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শেষ হওয়ার ইঙ্গিত মিলেছে। তবে আরও এক বড় এক যুদ্ধের আশঙ্কায় কাঁপতে শুরু করেছে আমেরিকা (United States) সহ গোটা বিশ্ব।

শোনা যাচ্ছে, ইজরায়েলি সেনাবাহিনী (Israel Defense Forces) গাজায় তাদের যুদ্ধ শেষ করার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। যদিও এখন লেবাননে (Lebanon) বসবাসরত হিজবুল্লাহ জঙ্গিদের (Hezbollah) একটি শিক্ষা দেওয়ার দিব্যি কেটে নিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ ইরান সমর্থিত হিজবুল্লাহর জঙ্গিরা ক্রমাগত ইজরায়েলি সেনা ঘাঁটিতে হামলা চালাচ্ছে। সর্বশেষ হামলায় তারা ইজরায়েলের একটি বিমানঘাঁটিতে ভয়াবহ ধ্বংস যজ্ঞ চালিয়েছে। এ কারণেই ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু (Benjamin Netanyahu) হিজবুল্লাহকে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

   

এদিকে ইসরায়েলের নতুন পরিকল্পনানিয়ে আমেরিকার উদ্বেগ বেড়েছে এবং বাইডেনের বিদেশমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন আবারও পশ্চিম এশিয়া সফরে গিয়েছেন। ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু হিজবুল্লাহকে হুমকি দিয়ে বলেছেন, ‘সাম্প্রতিক মাসগুলোতে হামাস যা বুঝেছে তা হিজবুল্লাহকে বোঝার পরামর্শ দেব। কোনো জঙ্গিকে ছাড় দেওয়া হবে না।‘ লেবাননের রাজধানী বেইরুটে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় হামাসের উপনেতা সালেহ আল-আরুরি নিহত হওয়ার এক সপ্তাহ পর নেতানিয়াহু এ হুমকি দেন। অভিযোগ, ইজরায়েলি ড্রোন বিমান ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে হামাস নেতাকে হত্যা করেছে।

এদিকে গাজা যুদ্ধ লেবাননে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা নিয়েও শঙ্কিত যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন বিদেশমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন হঠাৎ করে পশ্চিম এশিয়া সফরে গিয়েছেন। ইজরায়েল ও হিজবুল্লাহর মধ্যে যে কোনো ধরনের যুদ্ধ ঠেকানোই তার সফরের মূল উদ্দেশ্য বলে মনে করছে আন্তর্জাতিক মহল। ইজরায়েল স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, হিজবুল্লাহর পক্ষ থেকে সীমান্তে আইডিএফের ওপর এ ধরনের হামলা অব্যাহত থাকলে শীঘ্রই লেবাননে বড় ধরনের সামরিক অভিযান শুরু করতে পারে তাদের সেনাবাহিনী।

ইজরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োভ গ্যালান্ট বলেছেন, ‘আমরা একটি কূটনৈতিক সমাধান চাই, কিন্তু আমরা এমন এক পর্যায়ে পৌঁছে যাচ্ছি যেখান আলোচনার জন্য সময় ফুরিয়ে আসছে।‘  একই সঙ্গে মার্কিন কর্মকর্তারা আশঙ্কা করছেন, ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু এই লড়াই লেবানন পর্যন্ত প্রসারিত করতে পারেন, যা তার রাজনৈতিক টিকে থাকার জন্য প্রয়োজনীয়।

gaza israel war

মার্কিনি গোয়েন্দারা মূল্যায়ন করছেন, হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ইজরায়েলের জয়ের সম্ভাবনা কম, কারণ গাজা থেকে লেবানন পর্যন্ত তাদের সামরিক সম্পদ ভাগ করতে হবে। এদিকে, হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ যখন চতুর্থ মাসে প্রবেশ করছে, তখন ইজরায়েলি সামরিক বাহিনী ইঙ্গিত দিয়েছে যে তারা গাজার উত্তরাঞ্চলে বড় ধরনের লড়াই শেষ করেছে এবং সেখানে হামাসের সামরিক অবকাঠামো ধ্বংস করেছে। ইজরায়েলি সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র রিয়ার অ্যাডমিরাল ড্যানিয়েল হাগারি শনিবার রাতে বলেন, ‘সেনাবাহিনী সেখানে আরও বিজয় অব্যাহত রাখবে, ইসরায়েল-গাজা সীমান্তের বেড়ায় নিরাপত্তা জোরদার করবে। সেইসঙ্গে এই অঞ্চলের মধ্য ও দক্ষিণ অংশে মনোনিবেশ করবে।‘

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর