চাল, ডালের সঙ্গে এবার সুরা! এবার বাংলায় রেশন কার্ড দিয়ে রেশন দোকান থেকেই কিনতে পারবেন মদ

কিছু বছর আগের কথা, বাংলার আঞ্চলিক ভাষায় একটা গান বেশ হিট হয় ‘মদ আমাদের চাই এবার রেশন দোকানে’। এবার যেন সেই পথেই হাঁটছে রেশন ডিলাররা। শুধু হাঁটছে বললে ভুল বলা হয়, রীতিমত চিঠি পাঠিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র সরকারের কাছে অনুমতি চেয়েছে রেশন ডিলারদের সংগঠন। অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ ডিলারস ফেডারেশন গত ২০ সেপ্টেম্বর চিঠি পাঠিয়েছে কেন্দ্র সরকারের খাদ্য ও সরবরাহ মন্ত্রকের প্রধান সচিব সুধাংশু পান্ডেকে।

সেইসাথে ন্যায্য দাবী পাওয়ার কারণে চিঠির প্রতিলিপি পাঠানো হয়েছে কেন্দ্রীয় খাদ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়াল, কেন্দ্রীয় অর্থ সচিব, কেন্দ্রীয় রাজস্ব সচিব, কেন্দ্রীয় ক্রেতা সুরক্ষা ও খাদ্য মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী ও সব রাজ্যের খাদ্য কমিশনার ও খাদ্য সচিবদের। রেশন সংগঠনের দাবি এই যে, বহুদিন ধরে লাভের মুখ দেখতে পারেনি তারা। তাই রেশন দোকানগুলোকে বাঁচানোর জন্য এই পদক্ষেপ অত্যন্ত জরুরি।

রেশন দোকানেই যাতে লাইসেন্স প্রাপ্ত মদ বিক্রি করা যায় সেজন্য আবেদন করেছেন তারা। বর্তমানে দেশে ৫ লক্ষ ৩৭ হাজার ৮৬৮ টি রেশন দোকান রয়েছে। এই দোকানগুলোর সাথে যুক্ত রয়েছে ২.৫ কোটি মানুষ এর কর্মসংস্থান। এমতাবস্থায় ক্ষতির মুখে কতদিন তারা দোকান গুলো চালাতে পারবে সেই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তারা।

এই দোকানগুলোর ওপর নির্ভর করে রয়েছে ৫ কোটি মানুষ। তাই এই দোকান গুলোকে বাঁচিয়ে রাখাটাও জরুরি। আর তাই এই দোকানগুলোকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য বিকল্প পথ হিসেবে বেছে নিয়েছেন মদ বিক্রি। এছাড়া সেই সাথে রেশন দোকানে যাতে ৫ কেজির LPG সিলিন্ডার বিক্রি করা যায় সেই ব্যাপারেও খতিয়ে দেখার অনুরোধ করেছে তারা।

অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ ডিলার ফেডারেশনের অন্যতম কর্তা জয়ন্ত দেবনাথ বলেন, “এক একটি রেশন দোকানে দুই থেকে চারজন করে কর্মচারী রয়েছেন। মালিক ও কর্মচারীদের পরিবারে রয়েছেন আরও ৩-৪ জন সদস্য। হিসেব কষে দেখলে পাঁচ কোটিরও বেশি মানুষ রেশন দোকানের ওপর নিজের জীবিকা নির্বাহ করে। তাই কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারগুলির উচিত রেশন দোকানগুলিকে বাঁচিয়ে রাখা।”

ration duyare

তিনি সেই সাথে এও বলেন যে, রেশন দোকানগুলিকে বাজারে বাঁচিয়ে রেখে যাতে রেশন দোকান মালিক এবং শ্রমিকপক্ষকে বাঁচিয়ে রাখা যায় সেরকম প্রস্তাব রেখেছেন তারা।” তিনি বলেন যে, সরকার তাদের দাবীপূরণ করলে যে শুধু তারাই উপকৃত হবেন তাই না, একইসাথে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের রাজস্ব বৃদ্ধির পরিমাণ আরো কয়েকগুণ বাড়তে চলেছে।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button