মায়ের কাছেই নিতেন টিউশন, অদম্য ইচ্ছাশক্তির জেরে ISRO-তে ডাক পেলেন কৃষ্ণনগরের নবারুণ

মনের মধ্যে যদি অদম্য ইচ্ছে থাকে আর সাথে কিছু করে দেখানোর ধৈর্য্য এবং কঠিন পরিশ্রম করার মানসিকতা থাকে তাহলে কি না করা যায়। তারই এক প্রকৃষ্ট উদাহরণ হয়ে উঠেছে নদিয়া (Nadia) কৃষ্ণনগরের (Krishnanagar) চাঁদসড়ক এলাকার বাসিন্দার নবারুণ পোদ্দার। তিনি ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থায় (Indian Space Research Organisation) কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন।

শুরুটা হয় বাবার কাছে গল্প শুনে। সেজন্য বিভিন্ন মহাকাশ বিজ্ঞানীদের সম্পর্কে জানার পর ইচ্ছে জাগে মহাকাশ বিজ্ঞানী হওয়ার। এরপর নিজের সেই স্বপ্নকে সাকার করা জন্য প্রাণপাত পরিশ্রম করেন। অবশেষে ডাক পেয়েছেন ইসরো (Isro) থেকে।

খবর জানার পর খুশির হওয়া পরিবারে। ইরোরোর মত জায়গায় সুযোগ পাওয়া সহজ নয়, সেখানে সুযোগ পাওয়ায় পরিবার পরিজন সহ এলাকাবাসীও খুব খুশি। একরকম নিজের চেষ্টাতেই এই সুযোগ পেয়েছেন তিনি। চলুন আপনাদের জানায় নবারুণ কিভাবে এখানে সুযোগ পেয়েছেন।

পড়াশুনার শুরু কৃষ্ণনগরের একটি বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম বিদ্যালয়ে। সেখান থেকেই যাত্রার শুরু। খুবই মেধাবী ছিলেন তিনি। দশম শ্রেণি পর্যন্ত মা শিপ্রা পোদ্দারই পড়িয়েছেন তাকে। সেই ছোট্ট থেকেই বিজ্ঞান নিয়ে অনেক কৌতূহল ছিল তার মধ্যে। এরপর একাদশে সায়েন্স নিয়ে ভর্ত্তি হন।

isro nabarun

উচ্চশিক্ষা হয় বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটিতে। সেখানে পদার্থবিদ্যায় এমএসসি পাশ করেন তিনি। এরপর মহাকাশ গবেষণার জন্য ইসরোতে সুযোগ পান তিনি। ইসরোতে আবেদন করলে ফলাফল তার পক্ষেই আসে। এখন কিছু বছর আপাতত তিনি কাজ করবেন ইসরোতে। সেখানে রিসার্চ স্কলার হিসেবে যোগ দিয়েছেন তিনি।

➦ আপনার জন্য বিশেষ খবর

Back to top button