ক্রিকেট ছেড়ে এখন সফল ব্যবসায়ী! ইউসুফ পাঠানের মোট সম্পত্তি জানলে ঢোক গিলবেন

নতুন করে আলোচনায় উঠে এসেছেন ইউসুফ পাঠান। সৌজন্যে তৃণমূল কংগ্রেস। রবিবার ব্রিগেডের জন গর্জন সভা থেকে আসন্ন লোকসভা ভোটের জন্য প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে রাজ্যের শাসক দল। প্রার্থী তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী প্রাক্তন ক্রিকেটার ইউসুফ পাঠান।

মুর্শিদাবাদের বহরমপুর থেকে নির্বাচনে দাঁড়াবেন ইউসুফ পাঠান। ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন অনেক দিন আগে। এরপর মাঝে মধ্যে খবরে তাঁর নাম উঠে এলেও ইউসুফ পাঠান নাম কার্যত ঢাকা পড়ে গিয়েছিল। নির্বাচনী হাওয়া উড়িয়ে দিয়েছে ধুলো। আবারো চর্চায় ইরফান পাঠানের ভাই ইউসুফ পাঠান। ক্রিকেটার হিসেবে তিনি সফল। তার পর করেছেন বিনিয়োগ, হয়েছেন একজন ব্যবসায়ী মানুষ। ব্যাট প্যাড তুলে রাখলেও টাকা পয়সার অভাব নেই। ইউসুফের সম্পত্তির কথা শুনলে সাধারণ মানুষের চোখ উঠবে কপালে।

   

ক্রিকেটার হিসেবে নাম কামিয়েছিলেন বিগ হিটার হয়ে। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ইউসুফের বড় বড় ওভার বাউন্ডারি এখনও ভুলতে পারেননি ক্রিকেট প্রেমী জনতা। জাতীয় দলের পাশাপাশি খেলেছিলেন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। রাজস্থান রয়্যালস ও কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলেছেন একাধিক স্মরণীয় ইনিংস। ক্রিকেটের সুবাদে আয় হয়েছে বেশ ভালই।

yusuf

ইউসুফ পাঠানের মোট সম্পত্তি

বাইশ গজ থেকে অবসর নেওয়ার পর মন দিয়েছিলেন ব্যবসায়িক কাজে। তাতেও ধন লাভ। ইউসুফ পাঠানের গ্যারেজে রয়েছে ফোর্ড এন্ডেভাওয়র, বিএমডব্লিউ এক্স ফাইভ। বরোদায় রয়েছে বিলাসবহুল ডিসাইনার হাউস। ভারতীয় মুদ্রায় যার মূল্য প্রায় ৬ কোটি টাকা। পাঠানের বার্ষিক আয় প্রায় ২০ কোটি টাকা। মনে করা হয় যে ইউসুফ পাঠানের মোট সম্পত্তির মূল্য প্রায় ৩০ মিলিয়ন ডলার বা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ২২০ কোটি টাকা।

শোনা যায়, দামী গাড়ি, কোম্পানি ছাড়াও তাঁর নামে আরও অনেক সম্পত্তি রয়েছে। দেশের একাধিক জায়গায় ইউসুফ পাঠানের সম্পত্তি রয়েছে বলে মনে করা হয়। পাঠানের এখন যা বার্ষিক আয় সেটা আগামী দিনে কমার সম্ভাবনা খুব একটা নেই। বরং বহু সুপ্রসন্ন থাকলে নিজের নামে সম্পত্তি আরও বাড়িয়ে নিতে পারেন তিনি।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর