৩.২০ লাখ কোটি, ২০০ কিমি বেগে ছুটবে বন্দে ভারত! বড় প্ল্যান রেলের, সুখবর মিলবে বাজেটে

প্রত্যেকদিন কয়েক কোটি মানুষ দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যাওয়ার জন্য ভারতীয় রেলের (Indian Railways) উপরেই চোখ বন্ধ করে ভরসা করেন। এদিকে নিত্যযাত্রীদের কথা ভাবনা চিন্তা করে প্রায় সময় কিছু না কিছু ট্রেন, রেল স্টেশনগুলিতে পরিবর্তন এনেই চলেছে ভারতীয় রেল। এবার আরও বড়সড় চমক দিতে চলেছে কেন্দ্র।

জানা গিয়েছে, এবারে কেন্দ্রীয় বাজেটে (Budget) ভারতীয় রেল নিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে মোদী সরকার। আধা গতিতে ট্রেন চালানোর জন্য রেলকে ৩ লক্ষ ২০ হাজার কোটি টাকার বাজেট দিতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার (Central Government)। এই অর্থ দিয়ে স্লিপার বন্দে ভারত ট্রেনের (Sleeper Vande Bharat) কোচ উৎপাদন, রেললাইন-বর্মে সংঘর্ষ বিরোধী প্রযুক্তি স্থাপন, অমৃত ভারত ট্রেনের (Amrit Bharat Express) কোচ-ইঞ্জিন নির্মাণ, নতুন লাইন নির্মাণ, দ্বিগুণ, গেজ রূপান্তর ইত্যাদি উন্নয়নমূলক কাজ করা হবে।

   

রেল বোর্ডের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, এই বছরের মার্চ মাসের মধ্যে স্লিপার বন্দে ভারত ট্রেন চালানোর জন্য চেন্নাইয়ের আইসিএফে কোচ তৈরির কাজ দ্রুত গতিতে চলছে। রেলের প্রিমিয়াম রাজধানী এক্সপ্রেস ট্রেনের পরিবর্তে স্লিপার বন্দে ভারত ট্রেন চালানো হবে। শতাব্দী এক্সপ্রেসের পরিবর্তে ইতিমধ্যেই বন্দে ভারত ট্রেন চালানো হচ্ছে। বর্তমানে ৮০টিরও বেশি বন্দে ভারত ট্রেন চলছে।

এক রেল আধিকারিক বলেন, সাধারণ মানুষের দ্রুত, নিরাপদ এবং আরামদায়ক ভ্রমণের জন্য উভয় ধরণের বন্দে ভারত ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানো হবে। ব্রিজ-পুশ প্রযুক্তি সম্বলিত অমৃত ভারত ট্রেনের সংখ্যা বাড়াতে কোচ এবং নতুন লোকোমোটিভ তৈরি করবে রেল। গত সাধারণ বাজেটে মোট মূলধনী ব্যয় ছিল ২.৬০ লক্ষ কোটি টাকা।

indian railways

এদিকে ৩.২০ লক্ষ কোটি টাকার বাজেট সহায়তায় দিল্লি-মুম্বই, দিল্লি-কলকাতা সহ ব্যস্ত রেল রুটে এসি টেকনোলজি কবচ বসানোর কাজ করা হবে। এছাড়াও, উপরোক্ত উভয় রেল রুটে আধা-উচ্চ গতিতে (প্রতি ঘণ্টায় ১৬০-২০০ কিলোমিটার) বন্দে ভারত ট্রেন চালানোর জন্য উন্নতি করা হবে। এই দুই রেলপথেই দেশের মধ্যে প্রথমে সেমি হাইস্পিডে বন্দে ভারত ট্রেন চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এছাড়াও, এই বাজেট সহায়তার সাথে, রেলওয়ে অবকাঠামো শক্তিশালীকরণ, যেমন নতুন রেললাইন, লাইন ডবল, ট্রিপলিং, গেজ রূপান্তর ইত্যাদির মতো কাজ করে। এতে যাত্রীবাহী ট্রেনের গতি বাড়বে।

বিগত ৭ বছর ধরে সাংবাদিকতার পেশার সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল মিডিয়ায় সাবলীল। লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের বই পড়ার নেশা।

সম্পর্কিত খবর